নতুন খবর

এবার কি মিশন POK ? ভারত-পাক সীমান্তে পৌঁছে গেল প্রচুর পরিমানে অস্ত্রশস্ত্র।

পাকিস্তান POK এর স্ট্যাটাস পরিবর্তন করবে বলে খবর সামনে এসেছে। যার পর থেকে সীমান্তে আরো একবার উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। কাশ্মীর থেকে ধারা ৩৭০ অপসারণের পর থেকে ভারত ও পাক সীমান্তে উত্তেজনা চরমে রয়েছে। পাকিস্তান আন্তর্জাতিক মহলে ভারতে ঘেরার চেষ্টাও চালিয়ে ছিল। তবে সেখানে পুরোপুরি ব্যার্থ হয় পাক কূটনীতিবিদরা। অন্যদিকে ভারতের কূটনীতিবিদরা বিশ্বকে এটা মানিয়ে নিতে সক্ষম হয় যে ৩৭০ ধারা অপসারণ ভারতের অভ্যন্তরীণ মামলা। সেই থেকে ভারতের প্রতি পাকিস্তানের আক্রোশ আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। পাক সেনা এখন প্রায় ভারতের সাথে যুদ্ধ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে আক্রমন করে বসে। আর এর পাল্টা ঝটকা খেতেও হয় পাক সেনাকে। বিগত কিছু সময় ধরে পাক সেনা ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ করানোর চেস্টাও চালিয়েছে যা বানচাল করেছে ভারতীয় সেনা।

এমন পরিস্থিতি এখন এক তাজা খবর সামনে আসছে। খবর এই যে, ভারতীয় সেনা সীমান্তে বেশ ভারী পরিমানে অস্ত্র শস্ত্র জমা করতে শুরু করেছে। মাত্র দু দিন আগেই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পরমাণু হামলার হুমকি দিয়েছিলেন। আর এখন ভারতীয় সেনা সীমান্তে যেভাবে অস্ত্র মজুত করছে তা বেশ লক্ষণীয় বিষয়। আগস্ট থেকে অক্টোবর পর্যন্ত পাকিস্তান ৯৫০ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘণ করেছে। বেশিকিছুদিন ধরে পাকিস্তানের BAT টিম LOC তে সক্রিয় থাকার খবরও সামনে এসেছে। গতকাল ভারতীয় সেনা BAT টিমের একটা আক্রমন ব্যার্থ করে।

ভারতে CAA আইন নিয়ে যে উপদ্রবের ঘটনা সামনে আসছে সেখানেও পাকিস্তানের উস্কানি রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে সমস্ত পরিস্থিতির মধ্যে প্রশ্ন উঠেছে যে ভারত সরকার কি এবার POK পূর্ণদখলের জন্য কাজ শুরু করেছে? আসলে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah) আগেই বলেছেন যে POK দখল করা আমাদের দায়িত্ব যা আমরা করবোই। সদনে ভাষণ চলাকালীন অমিত শাহ বলেছিলেন POK এর জন্য আমি প্রাণ দিতেও পস্তুত। তবে সরকার POK দখলের সময়সীমা নিয়ে কোনো কথা বলেনি। তাই প্রশ্নঃ উঠেছে যে ভারত সরকারের পরবর্তী টার্গেট কি POK?

সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত বলেছেন সীমান্তে পরিস্থিতির অবনতি ঘটতে পারে। তবে আমরা পরিস্থিতি মোকাবিলা কররা জন্য প্রস্তুত আছি। পাকিস্তান সিদ্ধান্ত নিয়েছে POK কে তাদের একটা রাজ্য অন্তর্ভূক্ত করার। এখন এর উপর ভারত কোনো পদক্ষেপ নেবে কিনা তাই নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

Related Articles

Back to top button