নতুন খবরভারতবর্ষ

কাশ্মীর ঘাঁটিতে ৩ মাস ধরে বন্ধ পড়ে থাকা রেল পরিষেবা চালু করলো কেন্দ্র সরকার।

জম্মু-কাশ্মীর থেকে ধারা ৩৭০ অপসারণের পর এবার পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। কাশ্মীরে আতঙ্কবাদীদের সংখ্যা কমতে শুরু হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীর এখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের আওতায় থাকায় সুরক্ষা ব্যাবস্থা মজবুত রয়েছে। এদিকে জম্মু-কাশ্মীর থেকে আরো একটা বড়ো খবর সামনে আসছে। খবর অনুযায়ী, জম্মু-কাশ্মীরে আবার রেল পরিষেবা শুরু হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরের প্রশাসনিক মুখপাত্র বলেন, কাশ্মীর উপত্যকায় রেল পরিষেবা পুনরুদ্ধার করা হচ্ছে। কাশ্মীরের বিভাগীয় কমিশনার বসির আহমদ খান রেলপথকে রেল ট্র্যাকটির তদন্ত ২ দিনের মধ্যে শেষ করতে এবং ট্রেন ট্রায়ালের কথা বলেন।

জানিয়ে দি, মাস আগে অর্থাৎ 5 আগস্ট, উত্তর কাশ্মীরের বারামুল্লা থেকে দক্ষিণ কাশ্মীরের বনহিল পর্যন্ত ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। জম্মু-কাশ্মীর থেকে  ধারা ৩৭০ অপসারণের পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এর বাইরে আরও একটি বড় খবর আসছে যে জম্মুতে অযোধ্যা রায়কে সামনে রেখে স্কুল-কলেজ এবং বন্ধ থাকা অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আজ থেকে খোলা হয়েছে। জম্মু বিভাগের কমিশনার সঞ্জীব ভার্মার মতে, যেখানেই প্রয়োজন, বাহিনী মোতায়েনের নিয়মগুলি কার্যকর থাকবে তবে সাধারণ জীবনে তার কোনও প্রভাব পড়বে না।

রেল পরিষেবা বন্ধ থাকায় সাধারণ জনজীবনের সাথে সাথে রেল বিভাগেরও বহু কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে। কেন্দ্র সরকার জম্মু-কাশ্মীরকে নতুন রূপ দেওয়ার জন্য কাজ করছে। রাষ্ট্রপতি পুনর্গঠন আইনের অনুচ্ছেদে বিশেষ পরিস্থিতিতে জম্মু ও কাশ্মীরের দড়ি নিজের হাতে নিতে পারেন ।দেশের স্বর্গ হিসাবে খ্যাত জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখকে এখন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের রূপ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও, জম্মু ও কাশ্মীরে পৃথক পতাকা আইনও বিলুপ্ত করে দেওয়া হয়েছে। এখন  রাজ্যের সর্বত্র শুধুমাত্র তিরঙ্গা উত্তোলন করা হবে। জম্মু ও কাশ্মীরে ১০৬ টি নতুন আইন কার্যকর হবে। ১৫৩ টি বিশেষ আইন জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিলুপ্ত করা হয়েছে। ভারত সরকার ৫ আগস্ট অনুচ্ছেদ ৩৭০ ,অপসারণকরার পর ৩১ অক্টোবর থেকে জম্মু ও কাশ্মীর ও লাদাখ দুটি পৃথক এলাকা পরিণত হয়েছে।

Related Articles

Back to top button