Press "Enter" to skip to content

চীনকে মাত দেওয়ার শক্তি ভারতের আছে, ভারতীয়রা সংঘবদ্ধ ও সক্রিয় হোক: জাপানিজ মিডিয়া

শেয়ার করুন -

চীন বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে দেওয়ার পর এখন বিস্তারবাদী নীতির উপর জোর দিতে শুরু করেছে। নেপালের নেতাদের লোভের জালে ফাঁসিয়ে পুরো নেপালকে তিব্বতের মতো করে গিলে নেওয়ার জন্য প্রক্রিয়া জারি রেখেছে চীন। একইসাথে সীমান্তে ভারতের সাথেও সংঘর্ষে লেগে পড়েছে। শুধু এই নয়, জাপানের সেনকাকু দ্বীপকেও নিজের দখলে আনার চেষ্টায় দ্বন্দ্বে জড়িয়েছে চাইনিজরা।

এ সমস্তকিছুকে কেন্দ্র করে আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় চর্চাও বেশ তীব্র রয়েছে। বিশেষ করে ভারত ও চীনের সংঘর্ষ নিয়ে মিডিয়া একটু বেশি সক্রিয় রয়েছে। ভারত-চীনের সংঘর্ষ নিয়ে জাপানি মিডিয়া যে প্রতিক্রিয়া দিয়েছে তা বেশ লক্ষণীয়।

জাপানের মিডিয়া স্পষ্ট শব্দে লিখেছে, ভারতীয়দের উচিত তিব্বত, জিনজিয়াং ইস্যুগুলিকে বার বার তুলে ধরা। সোজা ভাষায় চীন ৪ টি দেশের জমি কবজা করে এত বৃহৎ আকারে পরিণত হয়েছে। চীন ৫ টি দেশের সমষ্টি। একমাত্র ‘হান চায়না’ চীনের নিজের জায়গায়, বাকি পুরোটাই অন্য দেশ দখল করে রাখা জায়গায়। এই কারণে তিব্বত, জিনজিয়াং বার বার আলাদা দেশ হওয়ার দাবি জানায়।

জাপানের মিডিয়া বলেছে, ভারতের উচিত এই ইস্যুকে আরো তীব্র করার উপর জোর দেওয়া। জাপানের মিডিয়া দাবি করেছে, ভারতের শক্তি ও সামর্থ্য দুই রয়েছে, শুধু তার উপর ফোকাস করার প্রয়োজন আছে। এক কথায় জাপান ভারতীয়দের সংঘবদ্ধ হওয়ার ও সৈনিকদের মনোবল বৃদ্ধি করার জন্য পরামর্শ দিয়েছে।

জাপানের মিডিয়া চাইনিজ প্রোডাক্ট বয়কটের ট্রেন্ডকে বজায় রাখতে এবং সীমান্তে সাপ্পাই চেনের সুযোগ তোলার পরামর্শ দিয়েছে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, জাপানের মিডিয়া সবক্ষেত্রে সাধারণ ভারতীয়দের আরো সক্রিয় হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে।