নতুন খবরভারতবর্ষ

মহরম পালন থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলতে ধর্নায় শিয়া ধর্মগুরু! কর্ণপাত করতে রাজি নন যোগী আদিত্যনাথ

মহরমে তাজিয়াদারি আর আজাদারিতে যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) সরকারের জারি নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে শিয়া ধর্মগুরু মৌলানা কলবে জবাদ (Maulana Kalbe Jawad) শনিবার থেকে লখনউতে ধর্নায় বসেছেন। মৌলানা জবাদ লখনউ এর গুফরান ইমামবারায় শয়ে শয়ে মানুষদের নিয়ে যোগী সরকারের ফরমানের বিরুদ্ধে ধর্নায় বসেছেন। ওনার সাথে অন্য শিয়া ধর্মগুরুরাও আছেন। ধর্না শুরু করার আগে মৌলানা জবাদ প্রেস কনফারেন্স করে বলেব, সরকারের কাছে লাগাতার আমরা তাজিয়াদারি আর আজাদারির জন্য অনুমতি চাইছি, কিন্তু সরকার আমাদের দাবি মানছে না।

মৌলানা বলেন, মহরম লখনউয়ের সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িত। গোটা বিশ্বে লখনউয়ের আজাদারি বিখ্যাত। আমরা সরকারের কাছে বিশিষ্ট কিছু মানুষকে নিয়ে আজাদারি আর তাজিয়াদারির জন্য অনুমতি চাইছি। আমরা সরকারকে এও বলেছি যে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মজলিস করার অনুমতি দেওয়া হোক। কিন্তু সরকার আমাদের কোন কথাই শুনছে না। এমনকি সরকার আমাদের বাড়িতেও তাজিয়া রাখার অনুমতি দিচ্ছে না।

উনি অভিযোগ করে বলেন, সরকার শুধু পাঁচজনকে উপস্থিত থাকার অনুমতি দিয়েছে। আর আমরা চাইছি যে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আরও মানুষকে এই দিনে উপস্থিত থাকার অনুমতি দেওয়া হোক। কিন্তু সরকার আমাদের আবেদনে কর্ণপাতই করছে না। উনি বলেন, গোটা রাজ্যের মানুষ সরকারের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ। যারা তাজিয়া বানাচ্ছে তাঁদের সমস্যার মধ্যে ফেলার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। যারা নিজের বাড়িতে তাজিয়া রাখছে, তাঁদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করছে। উনি বলেন, আমি অনুমতি চাওয়ার জন্য প্রতিরক্ষা মন্ত্রী আর বিজেপির সাংসদ মুখতার আব্বাস নকভির সাথেও সাক্ষাৎ করেছি।

মৌলানা বলেন, আমি মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সাথে দুবার দেখা করে এই নিয়ে অনুমতি চেয়েছি। কিন্তু সরকার আমার কথা শুনছেই না। উনি বলেন, আমি সরকারকে দুদিনের আল্টিমেটাম দিচ্ছি। আগামী দুদিন পর্যন্ত ধর্না দেব আর সরকারের কাছে আবেদন করব যে, তাঁরা যেন নিজেদের নির্দেশিকায় সংশোধন করে। উনি বলেন, ভিড় যাতে জড় না হয় সেটা আমরা দেখে নেব, কিন্তু মহরম পালন হবে না এটা হতে পারে না।

Related Articles

Back to top button