নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

বাবুল সুপ্রিয়কে এমন কটাক্ষ করলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি, যা শুনে লজ্জায় মাথা হেঁট গায়কের

আসানসোলঃ এক সময়ে দুজনাই ছিলেন দুজনার বিরোধী। কিন্তু একুশের নির্বাচনের আগে জিতেন্দ্র তিওয়ারি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় বাবুল সুপ্রিয়র সতীর্থ হয়ে ওঠেন। যদিও, প্রথমবার বাবুল সুপ্রিয়র বিরোধিতার কারণেই জিতেন্দ্র তিওয়ারি বিজেপিতে নাম লেখাতে পারেন নি। কিন্তু পরে বরফ গলায় বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেন আসানসোলের প্রাক্তন মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি।

বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর দুজনাই একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করেন। বিধানসভা নির্বাচনে দুজনাকেই টিকিট দিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু দুজনাই ডাহা ফেল হন। যদিও, বাবুল সুপ্রিয় সাংসদ হওয়ার সুবাদে নিজের পদ ধরে রাখেন। কিন্তু বিধায়ক পদ ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া জিতেন্দ্র কোনও পদ ছাড়াই তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়ে যাওয়ার পণ করেন।

তবে আচমকাই হয় পট পরিবর্তন। দু’দিন আগেই সতীর্থ বাবুল সুপ্রিয় জিতেন্দ্র তিওয়ারির প্রাক্তন দল তৃণমূলে নাম লেখান। আর এরপর থেকেই দুজনের মধ্যে আবারও দ্বন্দ্ব শুরু হয়। আসানসোলের পুরভোট নিয়ে যখন প্রস্তুতি চালাচ্ছে দুই পক্ষ, তখন জিতেন্দ্র তিওয়ারি তাঁরই প্রাক্তন সহযোগী বাবুল সুপ্রিয়কে খোঁচা মেরে মন্তব্য করে রাজনৈতিক আবহাওয়া গরম করে দেন।

জিতেন্দ্র তিওয়ারি বাবুল সুপ্রিয়কে কটাক্ষ করে বলেন, ‘আগে ভালো গান করতেন, এখন ওনার থেকে রানু মণ্ডল ভালো গান করেন। যদি কোনও গায়ক-গায়িকাকেই ভোটে দাঁড় করাতে হয়, তাহলে তৃণমূল রানু মণ্ডলকেই দাঁড় করাক।” জিতেন্দ্র বলেন, ‘উনি যদি এতই পপুলার হয়ে থাকেন, তাহলে তৃণমূল ওনাকে আসানসোলের মেয়র পদে দাঁড় করাক। আমি জানি তৃণমূল তা করবে না। ওরা জানে এর থেকে রানু মণ্ডলকে প্রার্থী করলে বেশি ভোট পাবে।”

বাবুল সুপ্রিয়কে ভিতু বলেও কটাক্ষ করেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। আসানসোলের প্রাক্তন মেয়র বলেন, বাবুল সুপ্রিয় ভিতু বলেই এখানে দাঁড়াবে না। যখন কর্মীরা মার খাচ্ছিল বাবুল সুপ্রিয় ভিতুর মতো তৃণমূলে গিয়ে নাম লেখাল।

Related Articles

Back to top button