Press "Enter" to skip to content

বেআইনি ভাবে জমি নিয়ে নিজের বিশ্ববিদ্যালয় গড়ছিল আজম খান, ৭০ হেক্টর জমি কেড়ে নিচ্ছে যোগী সরকার

শেয়ার করুন -

লখনউঃ সমাজবাদী পার্টির সাংসদ মহম্মদ আজম খানের মুশকিল কম হওয়ার নামই নিচ্ছে না। শনিবার এডিএম জেপি গুপ্তার আদালত থেকে আবারও ঝটকা খেলেন আজম খান। আদালত জোহর ট্রাস্টের ৭০.০৫ হেক্টর জমি উত্তর প্রদেশ সরকারের নামে তুলে দেওয়ার আদেশ জারি করেছে। এই জমি এতদিন আজম খানের জোহর ট্রাস্টের নামে ছিল। তৎকালীন এসডিএম সদর জোহর ট্রাস্টের মামলার তদন্ত করেছিলেন। এরপএ এডিএম আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। আর এবার এডিএম জেপি গুপ্তা নিজের আদেশ শুনিয়েছেন।

জানিয়ে রাখি, জোহর বিশ্ববিদ্যালয় আইনকে নজরআন্দাজ করা প্রায় ৭০ হেক্টরের বেশি জমি কিনেছিল। আজম খানের বিশ্ববিদ্যালয় মাত্র ১২.৫ একর জমি কেনারই অনুমতি পেয়েছিল। এডিএম আদালত জোহর ট্রাস্টকে নিয়ম না পালন করায় দোষী সাব্যস্ত করে রায় শুনিয়েছে। সরকারি আইনজীবী অজয় তিওয়ারি বলেন, এবার এই জমি জোহর ট্রাস্টের থেকে ছিনিয়ে রাজ্য সরকারের নামে নথিভুক্ত করা হবে।

আজম খানের বিশ্ববিদ্যালয় ১৭০ একর জমি নিয়েছিল, কিন্তু তৎকালীন উত্তরপ্রদেশ সরকার দ্বারা গঠিত কোনও আইনই পালন করা হয়নি এই জমি গুলো কেনার জন্য। আজম খান নিজে জন প্রতিনিধি হয়ে শর্ত আর নিয়মের পালন করেছিলেন না। তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, জোহর ট্রাস্টের এই জমিতে জোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ চলছিল, কিন্তু বিগত ১০ বছরে ট্রাস্টের কোনও কাজই হয়নি বলে জানা যায়। জমি কেনায় বেনিয়ম পাওয়ার কারণেই আদালত এই সিদ্ধান্ত নেয়।