নতুন খবর

আমাদের সংবিধান বাঁচাতে হবে, দেশ বাঁচাতে হবে, সবাই মিলে CAB ও NRC এর বিরোধিতা করুন: কানাইয়া কুমার।

CAB বিল অনুযায়ী বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আগত সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। CAB বিল এখন আইনে পরিণত হয়েছে তবে এটা নিয়ে দেশে যে বিতর্ক চলছে তা থামার নাম নিচ্ছে না। অনেকে বলেছে যে CAB তে ধর্মের ভিত্তিতে ভেদাভেদ করা হচ্ছে। দাবি করা হয়েছে পাকিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আগত মুসলিমদেরও ভারতে নাগরিকত্ব দেওয়ার হোক। CAB এর বিরোধিতা করে দেশের নানা প্রান্তে মুসলিম ছাত্ররা বিরোধ প্রদর্শন করছে। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে থাকা লুঙ্গি বাহিনী সক্রিয় হয়ে রাজ্যজুড়ে ভাঙচুর চালিয়েছে।

CAB এর বিরুদ্ধে প্রদর্শনকারী এই উপদ্রবীদের পাশে দাঁড়িয়েন বামপন্থী নেতা কানাইয়া কুমার (kanhaiya kumar)। JNU স্টুডেন্টস ইউনিয়নের প্রাক্তন সভাপতি কানহাইয়া কুমার বুধবার দিল্লীতে জামিয়া ইসলামিয়া ছাত্রদের সাথে সামিল হয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন যে এই বিক্ষোভ শুধুমাত্র মুসলমানদের বাঁচানোর লড়াই নয়, পুরো দেশকে রক্ষার লড়াই।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাত নম্বর গেটের বাইরে বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশে কানহাইয়া কুমার বলেছিলেন যে জাতীয় নাগরিক নিবন্ধের বিষয়ে জনগণকে আরও বেশি উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত যা বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইনের চেয়ে বিপজ্জনক। কানাইয়া কুমার বলেন, CAB বিলের থেকে বিপদজ্জনক হলো NRC যার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামা উচিত।

কানাইয়া কুমার বলেন, আমরা সংবিধান বাঁচানোর জন্য লড়াই করবো। আমাদের এই লড়াই ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে। তিনি বলেছিলেন, এনআরসি যদি সারাদেশে বাস্তবায়ন করা হয় তবে আমাদের সকলকে নোট বন্দির দিন গুলির মতো লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে। কানহাইয়া কুমার বলেছিলেন যে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি-র তীব্র বিরোধিতা হওয়া উচিত তবে শান্তি বজায় রাখা উচিত। কানহাইয়া কুমার বলেছিলেন যে যারা সংবিধান বাঁচানোর চেষ্টা করছেন তাদেরকে দেশবিরোধী বলা হয় এবং যারা এটিকে নষ্ট করছে তাদের বলা হয় দেশপ্রেমিক।

Related Articles

Back to top button