আন্তর্জাতিকনতুন খবর

মানবতাকে বিপদে ফেলেছে চীন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে দায়ের হল ২০ ট্রিলিয়ন ডলারের মামলা

বলা হচ্ছে চীন তার বায়ো কেমিক্যাল অস্ত্র করোনা ভাইরাসের ব্যাবহার করে পুরো বিশ্বে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিয়েছে। চীনের এই ভাইরাসের জন্য হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। ব্যাবসাজ বাণিজ্য সম্পূর্ণভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। অনেক জায়গায় মানুষজন কাল কি খাবে সেই চিন্তায় মাথায় দিচ্ছে। চীনের এই ভাইরাসের কারণে ১৩০ কোটির ভারতবর্ষ পর্যন্ত লকডাউনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের অনেক মানুষজন বলেছেন, এটা চীনের ষড়যন্ত্র এবং চীন বিশ্বকে বিপদে ফেলে নিজে রাজা হওয়ার স্বপ্ন দেখছে।

কমিউনিস্ট চীনের বিরুদ্ধে মানুষজন খুব মারাত্মকভাবে বিষ উগরে দিচ্ছেন। আর এখন খবর আসছে যে চীনের বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ২০ ট্রিলিয়ন ডলারের কেস দায়ের হয়েছে। এই মামলাটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস আদালতে দায়ের করা হয়েছে। চীনের সরকার, চীনের রাষ্ট্রপতি ও চীনের সেনার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

দাবি করা হচ্ছে উহানের এক ল্যাবে বহু বছর ধরে চীন রি ভাইরাসের উপর কাজ করছিল। এখন এই চাইনিজ ভাইরাসের কারণে বহু লোকের মৃত্য হয়েছে, ইতালি মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে। ভারত, আমেরিকা, ইজরায়েল, ফ্রান্স সমস্থ শক্তি ঝুঁকে দিয়ে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার চেস্টা চালাচ্ছে। বিখ্যাত আমেরিকান সেলিব্রিটি ল্যারি ক্লেইমান চীনের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেছেন। আদালতে চীনের বিরুদ্ধে বেশকিছু প্ৰমাণও দায়ের করা হয়েছে এবং মামলার শুনানিও শুরু হয়েছে।

ল্যারি ক্লেম্যান আদালতকে বলেছেন , চাইনিজ সরকার করোনার ভাইরাস তৈরি করেছে, যা জৈব রাসায়নিক অস্ত্র, এটি প্রমাণ করার জন্য উনার তরফ থেকে আদালতেও প্রমাণ জমা দেওয়া হয়েছে। ল্যারি ক্লেম্যান আদালতকে বলেছে যে চীন এই অস্ত্র দিয়ে বিশ্ব অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে এবং মানবতাকে বিপদে ফেলছে। চীনের এই অস্ত্রের কারণে যা আজ বিশ্বে একটি মহাসংকট তৈরি করেছে। যার কোন সমাধান এখনও পাওয়া যায় নি। ল্যারি ক্লেম্যান ২০ ট্রিলিয়ন জরিমানার দাবি তুলেছেন যা চীনের GDP এর থেকেও বেশি।

Back to top button
Close