নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

সরকারি জায়গা দখল করে অফিস নির্মাণ করল বিধায়ক! গুরুতর অভিযোগ তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে

সরকারি জমিকে নিজের বাপ ঠাকুরদার সম্পত্তি ভেবে নিয়ে জোরজবরদস্তি দখল করে রাজগঞ্জের সুখানী অঞ্চলে তৈরি করা হয়েছে তৃণমূল বিধায়ক খগেশ্বর রায়ের জনসংযোগ কার্যালয়। রাজগঞ্জ ব্লকের এক কংগ্রেস নেতা এমন‌ই এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুলেছে। ফলে অস্বস্তিকর পরিবেশের বাতাবরণ তৈরি হয়েছে ঘাসফুল শিবিরে।

রবিবার রাজগঞ্জ ব্লকের সুখানি গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত রাজগঞ্জ বাজারে একটি জনসংযোগ কার্যালয়ের উদ্বোধন করেন খগেশ্বর। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, স্থানীয় মানুষের কাজের সুবিধার জন্য বিধায়ক মাসে তিনদিন করে ওই কার্যালয়ে বসবেন। অন্যান্য দিনে পরিষেবা দেবেন দলীয় কর্মীরা। কিন্তু ওই কার্যালয়ের জমি নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

কংগ্রেসের রাজগঞ্জ ব্লক সভাপতি দেবব্রত নাগ বলেছেন, “বহু বছর থেকেই আমরা জানি ওই জায়গাটি ডাকবাংলো জেলা পরিষদের জায়গা। এই জায়গায় মার্কেট কমপ্লেক্স তৈরির জন্য ২৫ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। সেই সময় মহেন্দ্র কুমার রায় সাংসদ ছিলেন। কিন্তু অনিবার্য কারণবশত তা আর হয়ে ওঠেনি। বর্তমান শাসকদল সেই জায়গাটি গায়ের জোরে দখল করে দলীয় কার্যালয় তৈরি করেছে। এই বিষয়টি জেলা পরিষদের দৃষ্টি আকর্ষণ করানোর চেষ্টা করছি।”

যদিও এই অভিযোগ ধূলিসাৎ করে দিয়েছেন রাজগঞ্জের বিধায়ক খগেশ্বর রায়। তিনি দাবি করেছেন, ওই জায়গাটি জেলা পরিষদের নয়, এমনকি পিডাব্লিউডি-রও নয়। এই জায়গাটি ব্যক্তিগত জায়গা। জেলা পরিষদ যদি বলে জায়গাটি তাদের, তবে ভেঙে দেওয়া হবে ওই কার্যালয়।

এ বিষয়ে মুখ খুলেছেন জলপাইগুড়ি জেলাপরিষদের সভাধিপতি উত্তরা বর্মন। তিনি টেলিফোনে জানিয়েছেন, “গতকাল এই ধরনের অভিযোগের কথা আমার কানে এসেছে। এ কথা সত্য ওই এলাকায় প্রচুর জমি জেলা পরিষদের রয়েছে। তবে ওই জমিটি জেলা পরিষদ না অন্য কারোর তা ক্ষতিয়ে দেখবে জেলাপরিষদ।”

Related Articles

Back to top button