Press "Enter" to skip to content

ঔরঙ্গজেবের মতো মানুষ ভারতের জন্য কলঙ্ক, যোগীর পথে হেঁটে রাজ্য থেকে মুঘলদের নাম হটানোর তোরজোড় শিবরাজ সরকারের

শেয়ার করুন -

ভোপালঃ উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের (Yogi Adityanath) পথ অনুসরণ করা শুরু করলেন মধ্য প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান (Shivraj Singh Chouhan)। এবার উত্তর প্রদেশের পর মধ্যপ্রদেশেও শহরের নাম বদলানোর কাজ শুরু হতে চলেছে। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশের প্রোটেম স্পীকার রামেশ্বর শর্মা ঈদগাহ হিলস এর নাম বদলে গুরুনানক টেকরি আর হোশাঙ্গাবাদের নাম বদলে নর্মদাপুর রাখার দাবি জানিয়েছেন।

রামেশ্বর শর্মা

তিনি জানান, ঔরঙ্গজেব আর হোশাঙ্গ শাহ নাম কলঙ্কিত। ভারতের পৃষ্ঠভূমির সাথে জড়িত নাম গুলো নিয়ে আমাদের কোনও আপত্তি নেই। কিন্তু ঔরঙ্গজেব আর হোশাঙ্গ শাহ’এর মতো মানুষ আমাদের জন্য কলঙ্ক আর আমাদের শহরের নাম এরকম ডাকাতদের নামে কেনও রাখব আমরা? উল্লখ্য, রামেশ্বর শর্মা সোমবার বিধায়ক বিশ্রাম গৃহের কার্যক্রমের জন্য ভূমি পুজোয় অংশ নিয়েছিলেন, সেই সময় তিনি হোশাঙ্গাবাদের নাম বদলে নর্মদাপুর করার প্রস্তাব দেন।

রামেশ্বর শর্মা অনুযায়ী, রহিম কবীর রসখান বন্দনীয়, তিনি কখনোই জাতি ধর্ম নিয়ে বিচার করেন নি। ডঃ এপিজে আবদুল কালাম অথবা আশফাকউল্লাহর নামের কোনও জায়গার নাম হলে আপত্তি নেই, কারণ ওনারা ভারতীয় সংস্কৃতিকে এগিয়ে যাওয়ার কাজ করেছেন। কিন্তু হোশাঙ্গ শাহ’এর মতো ডাকাতের নামে আমাদের শহরের নাম হওয়ায় আপত্তি আছে। আমরা একজন ডাকাতের নামে আমাদের শহরের নাম দেবো কেনও?

আপনাদের জানিয়ে দিই, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সম্প্রতি হায়দ্রাবাদের নাম বদলে ভাগ্যনগর করার কথা বলেন। এবার মধ্যপ্রদেশেও নাম বদলানোর রাজনীতি শুরু হয়ে গিয়েছে। এই মামলা নিয়ে ইন্দোরের প্রাক্তন সাংসদ সুমিত্রা মহাজন আগেই আওয়াজ তুলেছিলেন।