নতুন খবরভারতবর্ষভারতীয় সেনা

পুলওয়ামার বদলা নিতে গিয়ে শহীদ হয়েছিলেন মেজর, শৌর্য চক্রে সম্মানিত করলেন রাষ্ট্রপতি

নয়া দিল্লিঃ  পুলওয়ামার ৫ সন্ত্রাসীকে নিকেশ করার জন্য মরণোত্তর শৌর্য চক্রে সম্মানিত করা হল শহীদ মেজর বিভূতি শঙ্কর ধুন্দিয়ালকে (major vibhuti shankar dhoundiyal)। সোমবার দিল্লীর অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতির হাত থেকে এই পুরস্কার নিলেন ওনার স্ত্রী লেফটেন্যান্ট নিতিকা কৌল এবং মা সরোজ ধুন্দিয়াল।

২০১৯ সালের ১৪ ই ফেব্রুয়ারী পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে একটি সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিল। যেখানে ৪০ জন সেনা শহীদ হয়েছিলেন। এই হামলার পর সেনাবাহিনী পুলওয়ামার পিংলান গ্রামে সন্ত্রাসীদের খতম অভিযান চালায়। এই হামলায় সন্ত্রাসীদের খতম করার পাশাপাশি চার সেনাও শহীদ হন। তাঁদের মধ্যে ছিলেন শহীদ মেজর বিভূতি শঙ্কর ধুন্দিয়াল।

আবার এই বছরই মে মাসে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে লেফটেন্যান্ট হন শহীদ মেজর বিভূতি শঙ্কর ধুন্দিয়ালের স্ত্রী নিতিকা কৌল। স্বামীর এই আত্মবলিদানের জন্য গর্বিত স্ত্রী নিতিকা কৌল। স্বামীর মৃতদেহের সামনে দাঁড়িয়েই সেলাম জানিয়ে নিতিকা কৌল বলেছিলেন, ‘তুমি মিথ্যে বলেছিলে যে তুমি আমাকে ভালোবাসো। তুমি আমার থেকেও তোমার দেশকে বেশি ভালোবাসো। আর এই বিষয়ের জন্য আমি খুবই গর্বিত’।

বর্ধমানে শহীদ মেজরের বাড়িতে মেজরের মা, স্ত্রী আর ছোট বোন রয়েছেন। বড় বোন পুজার আগেই বিয়ে হয়ে গিয়েছে। তাঁর স্বামী সেনা কর্নেল। আর মেজো বোন বিয়ের পর আমেরিকায় থাকে। ছোট থেকেই দেশের সেবা করার লক্ষ্য নিয়েছিলেন বিভূতি শঙ্কর ধুন্দিয়াল। আর সেই স্বপ্নকে সত্যি করতে গিয়েই জঙ্গিদের সঙ্গে যুদ্ধে শহীদ হন তিনি।

এইদিন শহীদ মেজর বিভূতি শঙ্কর ধুন্দিয়ালের হয়ে রাষ্ট্রপতির হাত থেকে মরণোত্তর শৌর্য চক্র সম্মান হাতে নিলেন মেজরের স্ত্রী এবং মা। স্ত্রী নিতিকা কৌল লেফটেন্যান্টের পোশাকই পরিধান করেছিলেন।

Related Articles

Back to top button