Press "Enter" to skip to content

বাড়িতে গিয়ে বাসন মেজে দেব, পুরশুড়ার সভায় বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

শেয়ার করুন -

পুরশুড়াঃ আজ হুগলীর পুরশুড়ায় সভা করছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নির্বাচনের আগে রাজ্যের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে একের পর এক সভা করে চলেছেন তিনি। আর প্রতিটি সভা থেকেই তিনি বিজেপি এবং কেন্দ্র সরকারকে একহাতে নিচ্ছেন। আজও একই ছন্দে দেখা গেল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আর পুরশুড়ার সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী যা বলেন …

বিজেপির লোকেরা নোংরামি করছে, কিছুদিন আগে একটা ছবি দেখিয়ে বলছিল যে স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড নিয়ে গিয়েও পরিষেবা পায়নি। আসলে ওদের ওটা ভুয়ো রটনা। ওটা আগের একটা বাকি বিল মেটাতে গিয়েছিলেন তিনি। কার্ড যখন থেকে তৈরি হয়েছে তখন থেকে পরিষেবা পাবে। আগের বিলের টাকা তো আর দেবে না।

দু একজন লোক পালিয়ে যাচ্ছে। আসলে ওঁরা অনেক টাকা করে ফেলেছে। কোথায় রাখবে? বিজেপি হল একটা ওয়াশিং ম্যাশিন। চোরগুলো যাচ্ছে, বিজেপির ওয়াশিং ম্যাশিনে স্নান করছে আর সানলাইটে সাদা হয়ে যাচ্ছে। যার অনেক অনেক টাকা আছে, একমাত্র তাঁদের জন্যই বিজেপি।

তিনি বলেন, টিভিতে যত দেখাবে বিজেপি জিতছে, তত মনে করবেন বিজেপি হারছে। আমি সবাইকে আবেদন করছি হুগলির সবকটা আসন আমায় দিন। কোনও ভুল ভ্রান্তি থাকলে আমি সব দেখে নেব। কিন্তু ভুল করেও বিজেপি, সিপিএমদের একটিও ভোট দেবেন না। ওঁরা যা টাকা পয়সা নিয়ে আসবে, সেই টাকায় মাংস ভাত খেয়ে নিন। ওটা পচা টাকা, যাখুশি করুণ। কিন্তু ওদের ভোট দেবেন না।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমায় যদি কোনও মা এসে বলে, আমার বাসনটা মেজে দাও, আমি বলব হ্যাঁ দিচ্ছি। কারণ এটা মেয়েদের কাজ। ছেলেদেরও কাজ। কিন্তু আমাকে কেউ বন্দুক দেখালে, আমি তাঁকে বন্দুকের সিন্দুক দেখিয়ে দেব। আমি সত্যিকারের বন্দুকে বিশ্বাস করি না। রাজনীতি দিয়েই ওদের জবাব দেব।

বিজেপি হল বহিরাগত জ্বালাও পার্টি। বাক্স প্যাটরা নিয়ে এসে বলছে, হাম বাঙ্গাল কো গুজরাট বানা দেঙ্গে। আমি বিজেপিদের বলছি, হাম গুজরাট কো বাঙ্গাল বানা দেঙ্গে। বিজেপির কাছে মাথা নত করার আগে নিজের গলা নিজেই কেটে দেব। তিনি বলেন, আমি বলে ‘হরে কৃষ্ণ হরে রাম, বিদায় যাও বিজেপি, বাম”। আর ‘হরে কৃষ্ণ হরে হরে, তৃণমূল ঘরে”।