নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

আবাস যোজনায় বাড়ি পাইনি কেন! জনতার প্রশ্নে চটে গিয়ে দলীয় কর্মীকে কষিয়ে চড় বসালেন তৃণমূল প্রার্থী

সবংঃ প্রচারে বেরিয়ে জনতার প্রশ্নের মুখে পড়ে মেজাজ হারালেন সবংয়ের তৃণমূল প্রার্থী মানস ভুঁইয়া। বাংলার আবাস যোজনা নিয়ে গ্রামবাসীরা ওনাকে প্রশ্ন করার পর উনি দলীয় এক কর্মীর গালে সপাটে চড় বসান। এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর মানস ভুঁইয়ার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বিরোধীরাও কটাক্ষ করতে ছাড়েন নি তৃণমূলের এই প্রার্থীকে। এমনকি মানস ভুঁইয়াকে অশালীন ভাষাও ব্যবহার করতে দেখা গিয়েছে।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, গত সোমবার সবংয়ের তৃণমূল প্রার্থী মানস ভুঁইয়া দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে বিষ্ণুপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলেকার দাসপুরে প্রচারে যান। ওই গ্রাম তফসিলি জাতি অধ্যুষিত বলেই পরিচিত। শাসক দলের প্রার্থীকে হাতের সামনে পেয়ে এলাকাবাসী সরকারি প্রকল্পের সুবিধা না পাওয়ায় ক্ষোভ উগরে দেন। গ্রামবাসীদের প্রশ্ন ছিল, তাঁদের কেন এখনও বাংলার আবাস যোজনার বাড়ি দেওয়া হয়নি?

মানস ভুঁইয়া বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসীদের আশ্বস্ত করেন যে, এবার তিনি জয়ী হলে সবাইকে আবাস যোজনা অনুযায়ী সরকারি বাড়ি পাইয়ে দেওয়া হবে। যদিও মানসবাবুর আশ্বাসে সন্তুষ্ট হননি কেউই। তাঁরা প্রার্থীর সামনে ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, আমরা বাড়ি পেয়ে যাব জানি কিন্তু এতদিন কেন পাইনি সেটার উত্তর দিন।

এরপর তৃণমূল প্রার্থী মানস ভুঁইয়া দলের নেতা-কর্মীদের জিজ্ঞাসা করেন যে, বাংলার আবাস যোজনায় বাড়ি প্রাপকদের তালিকায় কতজন মানুষের নাম রয়েছে? কর্মীরা মানসবাবুর প্রশ্নের উত্তরে বলেন আড়াইশোর মতো মানুষের নাম রয়েছে ওই তালিকায়। কিন্তু সরকারের কোনও তালিকা তাঁদের হাতে নেই, সেটাও জানান তৃণমূলের কর্মীরা। এরপরই মেজাজ হারান তৃণমূলের প্রার্থী মানস ভুঁইয়া।

মেজাজ হারিয়ে ওনার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা নির্মলেন্দু ঘোরুই নামের এক তৃণমূলের এক কর্মীকে সপাটে চড় বসিয়ে দেন। পাশাপাশি ওনাকে অশালীন ভাষাও প্রয়োগ করতে দেখা গিয়েছে। দলীয় কর্মীকে চড় মারার পরেও এলাকাবাসীর ক্ষোভ একফোঁটাও কমেনি। এরপর মানসবাবু এলাকা ছেড়ে চলে যান।

বিজেপি মানসবাবুর এই আচরণকে তীব্র কটাক্ষ করেছে। আরেকদিকে, মানসবাবু বলেছেন এটা আমাদের ঘরের বিষয় বাইরের কারও কোনও কথা শোনা হবে না। দলের কর্মীদের শাসন করার অধিকার আমার আছে। বিজেপি ইচ্ছে করে এই ভিডিও ভাইরাল করছে আমাকে বদনাম করার জন্য।

Related Articles

Back to top button