নতুন খবরভারতবর্ষ

‘কোহলি সবার আগে পাকিস্তানকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে”, কাশ্মীরে ৬ জন গ্রেফতার হওয়ায় ক্ষোভ মেহবুবার

নয়া দিল্লিঃ আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপে রবিবার পাকিস্তানের (Pakistan) কাছে হেরে যায় ভারত (India)। এরপর জম্মু কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গা থেকে পাকিস্তানের জয়ের আনন্দ পালন করার মামলা সামনে এসেছে। জম্মুর সাম্বা জেলায় পুলিশ ছয় জনকে গ্রেফতার করেছে আর চার জনের খোঁজ চালাছে। পাশাপশি অন্যান্য জেলাতেও এই কাণ্ডের জন্য পুলিশ এবং সেনা অভিযুক্তদের খোঁজ চালাচ্ছে। আর এরই মধ্যে পিডিপি প্রধান মেহবুবা মুফতি পাকিস্তানের জয়ে উল্লাস করা কাশ্মীরিদের সমর্থনে ব্যাট ধরলেন। তিনি ট্যুইট করে লেখেন, আনন্দে মাতোয়ারা হওয়া মানুষদের উপর এত রাগ কেন?

পাকিস্তানের জয়ে উল্লাস করা মানুষদের সমর্থন করে মেহবুবা মুফতি বলেন, পাকিস্তানের জয়ের উল্লাস করা কাশ্মীরিদের উপর এত রাগ কেন? অনেকেই দেশের গদ্দারদের গুলি মারোর মতো স্লোগান দেয়। কেউ এটা ভুলতে পারবে না যে, জম্মু কাশ্মীরের থেকে বিশেষ রাজ্যের তকমা কেড়ে নেওয়ায় মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছিল। মেহবুবা মুফতি বলেন, খেলাকে বিরাট কোহলির মতো সবাই অন্য দৃষ্টিতে দেখুক। উনিই তো সবার আগে পাকিস্তানকে জয়ের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন।

সাম্বা পুলিশের মতে, পাকিস্তান ম্যাচ জিততেই মনোহর গোপালা গ্রামে কয়েকজন যুবক উল্লাস করা শুরু করে দেয়। অভিযোগ এও উঠেছে যে, কয়েকজন পাকিস্তান জিন্দাবাদের স্লোগান দিয়েছিল। এরফলে এলাকায় অশান্তির আবহ তৈরি হতে পারত। স্থানীয়রা একে একে একত্রিত হওয়া শুরু করেছিল। আমাদের কানে এই খবর আসে আমাদের কাছে এর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানানো হয়। এরপর আমরা তৎক্ষণাৎ সেখানে গিয়ে ছয় জনকে গ্রেফতার করি আর বাকিদের খোঁজ করছি।

অন্যদিকে, অনেক কাশ্মীরিই আবার পাকিস্তানের জয়ে উল্লাস করার বিরোধিতা করেছেন। এক কাশ্মীরি বয়স্ক বলেন, পাকিস্তানের জয়ে উল্লাস করা মানুষদের রেয়াত করা উচিৎ নয়। তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া দরকার। ওঁরা আমাদের এখানে শান্তি ভঙ্গ করার কাজ করছে।

Related Articles

Back to top button