Press "Enter" to skip to content

এই রাজ্যে করোনায় মুসলিমদের মৃত্যুর সংখ্যা সবথেকে বেশি! বড় চিন্তায় সরকার

শেয়ার করুন -

মুম্বাইঃ করোনাভাইরাসের কারণে গোটা দেশে আতঙ্কের মহল সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিদিন রোগী এবং মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। আর এরমধ্যে মহারাষ্ট্র (Maharashtra) থেকে অবাক করা পরিসংখ্যান সামনে এসেছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, করোনায় সবথেকে বেশি আক্রান্ত মুসলিমরা (Muslim) হচ্ছে। ৩রা মে পর্যন্ত রাজ্যে ৫৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে, যার মধ্যে ৪৪ শতাংশ মুসলিম। কিন্তু মহারাষ্ট্রের মোট জনসংখ্যার মাত্র ১২ শতাংশই মুসলিম।

ইংরেজি সংবাদ মাধ্যম দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এই পরিসংখ্যান নিয়ে লিখেছে যে, ১৭ মারর রাজ্যে করোনায় প্রথম মৃত্যুর মামলা সামনে আসে। ১৫ই এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে মৃত্যু বেড়ে ১৮৭ হয়ে যায়। ওই ১৮৭ জনের মধ্যে মুসলিমদের সংখ্যা ৮৯ ছিল। আর ১৫ই এপ্রিল থেকে ৩রা মে পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে ৩৬১ জনের মৃত্যু হয় করোনায়। যার মধ্যে মুসলিম ছিল ১৫০ জন।

মৃত্যুতে মুসলিমদের সংখ্যা বেশি দেখে মহারাষ্ট্র সরকার বেশ সমস্যায় পড়েছে। আর সেই কারণে সরকার এখন মুসলিমদের মধ্যে সচেতনতা ছড়াতে অনেক পদক্ষেপ নিচ্ছে। সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, হটস্পট এলাকা গুলোতে করোনা নিয়ে সচেতনতা ছড়াতে এবার উর্দুতে ম্যাসেজ দেওয়া হবে। এর সাথে সাথে মানুষদের বোঝানোর জন্য ধার্মিক নেতাদের সাহায্য নেওয়া হবে।

সরকারি আধিকারিক আর বিশেষজ্ঞদের মতে, মহারাষ্ট্রে মুসলিমরা লকডাউন ঠিক ভাবে পালন না করার জন্য তাদের মৃত্যুর সংখ্যা বেশি। এছাড়াও গলফ কান্ট্রি থেকে ফেরত আসা মানুষদের উপর দেরি করে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। এর সাথে সাথে ২০ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যের অনেক মসজিদেই জুম্মার নামাজ পড়া হত। এছাড়াও অনেক জনসংখ্যা হওয়ার কারণে বেশীরভাগ এলাকায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হয়নি।

মার্চের শেষে দিকে তাবলীগ জামাতের অনেকের মধ্যে করোনা পাওয়া গেছিল। এরা সবাই নিজামুদ্দিন মরকজে অংশ নিয়েছিল। মহারাষ্ট্রে জামাতের ৬৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়। কিন্তু সবথেকে বড় ব্যাপার হল, রাজ্যের মাত্র একজন জামাত সদস্যেরই মৃত্যু হয়েছে। তাও আবার গত ২২ মার্চে।