অপরাধনতুন খবরভারতবর্ষ

মাদ্রাসার টাকায় লাভ জিহাদ! হিন্দুবেশে যুবতীকে ফাঁসিয়ে বন্দি বানিয়ে ৬ মাস গণধর্ষণ! গ্রেফতার মহম্মদ আয়ান

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ উত্তর প্রদেশের রামপুর থেকে ৮ তারিখ মঙ্গলবার একটি লাভ জিহাদের মামলা সামনে এসেছে। ফেসবুকে মহম্মদ আয়ান হিন্দু ছদ্মবেশে রাহুল নামের ফেক আইডি বানিয়েছিল। এরপর সেই আইডি থেকেই এক যুবতীকে ফাঁসিয়ে ৬ মাস বন্দি বানিয়ে ধর্ষণ করে। এই মামলায় প্রধান অভিযুক্ত সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আয়ান আর তাঁর ভাইকে পুলিশ আটক করেছে।

অভিযোগ উঠেছে যে, মহম্মদ আয়ান নিজের বন্ধুদের সঙ্গে মিলে ওই যুবতীকে গণধর্ষণ করেছে। ধর্ষিতা কুশিনগরের বাসিন্দা আর অভিযুক্ত নবাবনগরের। নির্যাতিতা জানায়, অভিযুক্ত আমাকে তাঁর নাম রাহুল বলেছিল। সোশ্যাল মিডিয়ায় ধীরে ধীরে তাঁর সঙ্গে বন্ধুত্ব হয়। আর সেই বন্ধুত্ব প্রেমে পরিণত হয়। রাহুল (আয়ান) এর কথায় আমি বাড়ি ছেড়ে রামনগরে চলে আসি। এরপর সে আমাকে তাঁর গ্রামে নিয়ে যায়।

মোরাদাবাদ আইজির কাছে দেওয়া অভিযোগপত্রে নির্যাতিতা জানিয়েছে, ৬ মাস তাঁকে ঘরে বন্দি রাখা হয়েছিল। সেই সময় আমি জানতে পারি ওঁর নাম রাহুল না, ও একজন মুসলিম। নির্যাতিতা জানায়, রাহুল আমাকে ধর্ষণ করেছে, আর তাঁর বন্ধুদের দিয়েও আমাকে ধর্ষণ করিয়েছে।

নির্যাতিতা জানায়, দীর্ঘ ছয়মাস পর আমি কোনও ক্রমে সেখান থেকে পালিয়ে যাই আর স্থানীয় কোতওয়ালিতে অভিযোগ দায়ের করি। কিন্তু সেখানে আমার কথা কেউ শোনেনি। নির্যাতিতার অভিযোগের পর IG-র নির্দেশে এখন কেবলমাত্র এফআইআর দায়ের হয়েছে।

নির্যাতিতা অভিযোগ করে বলেছে, হিন্দু মেয়েদের প্রেম জালে ফাঁসিয়ে তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করার জন্য আয়ান মাদ্রাসা থেকে আর্থিক সাহায্য পেত। মাদ্রাসার সাহাজ্যেই সে জোর জবরদস্তি হিন্দু মেয়েদের ইসলাম কবুল করাত। বলে দিই, মহম্মদ আয়ানের সঙ্গে তাঁর ভাই রিয়াজ আলিকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button