নতুন খবরভারতবর্ষ

মুসলিম নাবালিকাকে বিয়ে হিন্দু যুবকের, ইসলামের আইন টেনে নবদম্পতিকে স্বীকৃতি দিল হাইকোর্ট

চণ্ডীগড়ঃ পাঞ্জাব-হরিয়ানা হাইকোর্ট (Punjab and Haryana High Court Chandigarh) একটি হিন্দু ছেলেকে বিয়ে করা ১৭ বছর বয়সী মুসলিম মেয়ের সুরক্ষার আবেদন গ্রহণ করার সময় বলেছে যে, মেয়েটি যৌন পরিপক্কতা অর্জন করেছে। আদালত বলেছে, বয়ঃসন্ধি পেরিয়েছে তাই সে তার পছন্দের সঙ্গীকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিতে স্বাধীন। নবদম্পতিকে নিরাপত্তা দিতে মালেরকোটলার এসএসপিকেও নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

পিটিশন দাখিল করে নবদম্পতি হাইকোর্টে জানায়, মেয়েটির বয়স ১৭ বছর এবং ছেলের বয়স ৩৩ বছর। দুজনেই পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে বিয়ে করায় তাদের জীবন বিপন্ন। আবেদনকারীরা বলেছেন যে, মুসলিম ধর্ম অনুসারে ছেলে এবং মেয়ে উভয়ই যৌন পরিপক্কতা অর্জনের পরে বিবাহের যোগ্য বলে বিবেচিত হয়। তাই তাদের সুরক্ষা দেওয়া উচিত।

হাইকোর্ট আবেদনের শুনানির সময় স্পষ্ট করে যে ইসলামিক আইনের নীতিমালা অনুসারে, ১৫ বছর বয়সী একটি মেয়ে যৌন পরিপক্কতা অর্জনের পরে বিবাহের যোগ্য বলে বিবেচিত হয়। এই ক্ষেত্রে মেয়েটির বয়স ১৭ বছর। মেয়েটি পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে বিয়ে করেছে, শুধু এ কারণে তাকে তার সাংবিধানিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করা যাবে না। আবেদন স্বীকার করে হাইকোর্ট এখন মালেরকোটলার এসএসপিকে নবদম্পতির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

Related Articles

Back to top button