আন্তর্জাতিকনতুন খবর

কুকুর পোষা পুঁজিবাদীদের কাজ, দেশের কুকুর গুলোকে রেস্তোরাঁয় বিক্রি করে দেওয়ার আদেশ কিম-এর

নয়া দিল্লীঃ করোনা কালে উত্তর কোরিয়া (North Korea) খাদ্য সঙ্কটের সমস্যার সন্মুখিন। আর এরমধ্যে উত্তর কোরিয়ার স্বৈরাচারী শাসক কিম জং উন (Kim Jong Un) দেশের মানুষদের জন্য এক আজব ফরমান জারি করেছে। কিম জং নিজের দেশের মানুষদের তাঁদের পোষ্য সারমেয়দের মাংস রেস্তোরাঁ গুলোতে সরবরাহ করার আদেশ জারি করেছে। উল্লেখ্য, কিম জং খাদ্য সামগ্রীর অভাব মেটাতে সারমেয়দের কেটে খাওয়ার আদেশ জারি করেছে। স্বৈরাচারী শাসকের এই ফরমানের পর রাস্তার কুকুর এবং পোষ্য সারমেয়রা চরম সমস্যার সন্মুখিন হতে চলেছে। নতুন আদেশে কিম জং উন কুকুর পোষায়ও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

জং এর এই আদেশের পর দেশের মানুষও চরম ধর্ম সঙ্কটে পড়েছে। যাঁদের বাড়িতে পোষ্য সারমেয় আছে, তাঁদের এখন একটাই আশঙ্কা যে সেগুলোকে তুলে নিয়ে গিয়ে রেস্তোরাঁ না বিক্রি করে দেয় সরকার। জানিয়ে দিই, গত জুলাই মাসে কিম জন্য কুকুর পোষা আইন বিরোধী বলে আখ্যা দিয়েছিল, আর বলেছিল এটি পুঁজিবাদীদের কাজ। আর এক মাস পর কিম পোষ্য সারমেয় গুলোকে মারার আদেশ দেয়।

কিম এর মতে গরীব মানুষ গোরু, ভেড়া, ছাগল আর শুয়োরের মতো পশুদের পালন করে মানুষের খাদ্যের চাহিদা মেটাতে। আরেকদিকে, প্যাংইয়াং এর মতো শহরে বড়লোকেরা কুকুর পালন করে। এটা পশ্চিমি সভ্যতা আর পুঁজিবাদী বিচারধারার প্রতীক। উত্তর কোরিয়ায় পশ্চিমি সভ্যতা আর পুঁজিবাদীদের জন্য কোন জায়গা নেই। দেশে কুকুর পোষা দণ্ডনীয় অপরাধ।

আর এই কারণে উত্তর কোরিয়ায় স্বৈরাচারী শাসক কুকুর পোষাতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে সেগুলোকে রেস্তোরাঁয় বিক্রি করার আদেশ দিয়েছে। বিগত কয়েকমাসে করোনার কারণে উত্তর কোরিয়া খাদ্য সঙ্কটে ভুগছে। কয়েক সপ্তাহ আগে সংযুক্ত রাষ্ট্র বলেছিল যে, উত্তর কোরিয়ার বেশীরভাগ পরিবার অনাহারে দিন কাটায়। আর খুব কম মানুষই দিনে দুবেলা পেট ভরে খেতে পারে।

Back to top button
Close