Press "Enter" to skip to content

নতুন শিক্ষানীতিকে মঞ্জুরি দিল মোদী সরকার! পাল্টে যাবে সম্পূর্ণ ভারতের শিক্ষাব্যাবস্থা

শেয়ার করুন -

ভারতে চন্দ্রগুপ্ত বিক্রমাদিত্য নামের এক মহান ন্যায়প্রিয় রাজা ছিলেন। রাজার দরবারে একদিন দুই মহিলা এক বাচ্চা নিয়ে বিচার চাইতে আসেন। দুই মহিলা বাচ্চাটিকে নিজের বলে দাবি করতে থাকে। রাজা আদেশ দেন যে বাচ্চাটিকে দুই টুকরো করে দুই মহিলাকে অর্ধেক অর্ধেক দিয়ে দিতে। তখন এক মহিলা কাঁদতে কাঁদতে বলেন বাচ্চাটি অন্য মহিলাকে দিয়ে দিন কিন্তু কাটবেন না।

রাজা বুঝতে পারেন যে কান্নাকাটি করে বাচ্চার জীবন ভিক্ষা পাওয়া মহিলা বাচ্চার আসল মা। বাচ্চাটিকে তৎক্ষণাৎ আসল মাকে দিয়ে দেওয়া হয়। আজকের দিনে দাঁড়িয়ে এমন বছর চেয়ে আদালতের দারস্থ হলে বছরের পর বছর পেরিয়ে যাবে কিন্তু ন্যায় পাওয়া মুশকিল হয়ে দাঁড়াবে। এর মূল কারণ ভারতের শিক্ষা ব্যাবস্থা।

এখন মোদী সরকার শিক্ষাব্যাবস্থাকে পরিবর্তন করার বড়ো ইঙ্গিত দিয়েছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক করে দেওয়া হয়েছে। একইসাথে শিক্ষার পুরো ব্যাবস্থাকে পাল্টে ফেলতে ISRO এর প্রাক্তন এক বিজ্ঞানীর নেতৃত্বে নতুন নীতি গঠন করা হয়েছে। মোদী ক্যাবিনেট নতুন শিক্ষানীতিকে (NEP) মঞ্জুরী দিয়েছে বলেও খবর সামনে আসছে।

এক সময় ভারতের নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়, তক্ষশীলা বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বকে শিক্ষার দিক থেকে নেতৃত্ব দিত। কিন্তু বার বার মুঘলদের উপদ্রব ও পরে ইংরেজদের উপদ্রবে সমস্ত শিক্ষার ভিত নষ্ট হয়ে গেছে। ভারতে শিক্ষা ব্যাবস্থা এখন ব্যাবসার বড়ো কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। শিক্ষাদানের নামে মূলত চলে টাকা পয়সার লুট। স্বাধীনতার এত বছর পরেও দেশে ইংরেজদের লাগু করা শিক্ষা ব্যাবস্থা ফুলেফেঁপে উঠেছে। আজকের দিনে দাঁড়িয়ে একজন জাপানি যখন জাপানি ভাষায় উচ্চতর বিজ্ঞানের জ্ঞানলাভ করে, একজন জার্মান জার্মানী ভাষায় বিজ্ঞান চর্চা করে তখন একজন ভারতীয় তার স্থানীয় ভাষায় বিজ্ঞানের জ্ঞান লাভের সুযোগ পায় না।

একজন ভারতীয়কে উচ্চমাধ্যমিকের পর থেকে বিজ্ঞানের জ্ঞান লাভের জন্য ইংরাজি ভাষার উপর ভরসা করে থাকতে হয়। আর যেহেতু ইংরাজি একটা বিদেশী ভাষা তাই বহু প্রতিভাশালী ছাত্র শুধুমাত্র ভাষার ভয়ে জ্ঞানলাভ থেকে বঞ্চিত হয়। মোদী সরকার নতুন শিক্ষানীতিতে ভারতীয় ভাষাকে আরো বেশি প্রভাবশালী করার উপরেও জোর দিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ভারতের সমস্ত স্থানীয় ভাষার সাথে সাথে সংস্কৃত ভাষার উপরেও বিশেষ জোর দেওয়া হবে। প্রসঙ্গত জানিয়েছে দি, ভারতের শিক্ষাব্যাবস্থার পরিবর্তন তথা NEP এর লাগু বিজেপির নির্বাচনী মেনুফেস্টের অন্তর্গত ছিল।