আন্তর্জাতিকনতুন খবর

ভারতে আসা নদীর জল আটকায়নি ভুটান সরকার! ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে কিছু সংবাদমাধ্যম

চীন এমন এক দেশ যা সংবাদ মাধ্যমের উপর ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করে রেখেছে। নিজের দেশে চীন সরকার সংবাদ মাধ্যমকে পোষা এজেন্ট বানিয়ে রেখেছে, এমনকিন অন্য দেশের অনেক সংবাদ মাধ্যমের উপরেও চীনের প্রভাব রয়েছে। সম্প্রতি ভারত চীন সীমান্তে উত্তেজনার মধ্যে এক খবর ছড়িয়ে পড়েছিল যে ভুটান ভারতের দিকে আগত জল আটকে দিয়েছে। অসমের বাকসা জেলা দিয়ে প্রবাহিত চ্যানেলের জল আটকে দিয়েছে বলে দাবি করা হয়েছিল।
ভারতের কিছু মেইনস্ট্রিম মিডিয়ায় এই খবর ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়েছিল। এখন সেই খবর সম্পূর্ণ ভুয়ো বলে জানা যাচ্ছে। ভূটানের সরকার ও ভুটানের সংবাদমাধম্যগুলি এই খবরকে ভুয়ো ও ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছে।

ছড়িয়ে পড়া খবরে দাবি করা হয়েছিল যে, ভুটান থেকে আসামের দিকে আগত নদীর জল আটকে দিয়েছে ভুটানের সরকার। যার ফলে আসামের ২৫ টি গ্রাম সহ বহু কৃষক সমস্যায় পড়েছে। আসামের কৃষকেরা এর জন্য বিক্ষোভ করেছেন বলেও দাবি করা হয়েছিল।

অন্যদিকে খবর ভাইরাল হতেই ভারতে রাজনৈতিক আক্রমন, পাল্টা আক্রমনও শুরু হয়ে যায়। বিরোধীরা ভারত সরকারের বিদেশনীতি ও কূটনীতির উপর প্রশ্ন তুলতে শুরু করে। তবে এখন ভুটান সরকার স্পষ্ট ভাষায় খবরটিকে ভুয়ো বলে জানিয়েছে। ভুটানের সরকারের তরফে বলা হয়েছে, বিগত কিছুদিনে পাহাড়ি এলকায় প্রবল বৃষ্টিপাত হয়েছে। ফলে নদীর উপর গাছাপাল পড়ে নদীর গতি কমে গেছে। সরকার সাফাই কাজ চালাচ্ছে যাতে আসামের কৃষকরা আবার সঠিক গতিতে জল পান।

ভূটানের অর্থমন্ত্রী শেরিং নামগেইল বলেছেন, আমাদের কাছে প্রতিবেশী দেশ প্রথম। ভারত ও ভুটান খুবই ঘনিষ্ট বন্ধু। আমাদের সরকার নদীর স্বাভাবিক স্রোত ফিরিয়ে আনতে কাজ করছেন এবং শীঘ্রই কৃষক বন্ধুরা জল পাবেন। অন্যদিকে আসামের প্রধান সচিব কুমার সঞ্চয় কৃষ্ণা ভুটান সরকারের বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছেন। কুমার সঞ্চয় কৃষ্ণা বলেছেন ভুটান নদীতে থাকা ব্লকেজ পরিষ্কার করার চেষ্টা করছে।

Back to top button
Close