নতুন খবরবাংলাদেশ

কুমিল্লার ভয়াবহতার পর এবার ফেনী! উন্মাদীদের হাত থেকে রক্ষা পেল না মা কালীর মন্দির

ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে বাংলাদেশের হিন্দুদের যে ভূমিকা ছিল তার তুলনা অন্য কোনো প্রান্তের সাথে করা যায় না। তবে সময়ের সাথে সাথে বাংলাদেশের হিন্দুদের সমস্তুদিক দুর্বল করে শুন্য করার যে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছিল, তা আজও চলছে। দুর্গাপূজার ঘটনা এ সমস্ত ঘটনার তাজা উদাহরণ।

কুমিল্লার ভয়াবহতার পর এবার ফেনী, রক্ষা পেল না মা কালীর মন্দির। এক গুজবকে কেন্দ্র করে হিন্দুদের দুর্গাপূজা মণ্ডপে হামলা শুরু করেছিল কট্টরপন্থীরা। কুমিল্লা থেকে শুরু করে পুরো বাংলাদেশ জুড়ে শুরু হয় হিন্দুদের উপর ভয়াবহ অত্যাচার। সুপরিকল্পিতভাবে চলে হিন্দুদের ঘর বাড়ি লুটপাট।

কুমিল্লার পূজা মন্ডপ ভাঙার প্রতিবাদে একটি শান্তিপূর্ণ মিছিলের আয়োজন করেছিল ফেনী জেলার হিন্দু বাসিন্দারা। প্রতিবাদ মিছিল করতে শনিবার রাস্তায় জোটবদ্ধ হয়েছিলেন সনাতনী হিন্দুরা। কিন্তু হিন্দুরা জমায়েত হতেই ইসলামিক শ্লোগান দিয়ে বোমা হাতে নিয়ে ছুটে আসে কট্টরপন্থীরা। একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, ফেনীর রাস্তায় বাঁশ নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করছে আক্রমণকারীরা। সূত্রের খবর, বাঁশপাড়া দুর্গামন্দিরে বিভিন্নভাবে হামলা চালানো হয়।

লক্ষণীয় বিষয়, বাংলাদেশের মিডিয়ায় এই সমস্ত ঘটনা নিয়ে একেবারে নীরব। লেখিকা তসলিমা নাসরিন বলেছেন, বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশেই বাংলাদেশের মিডিয়ায় মুখে কুলুপ এঁটেছে। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ার যুগের সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়েছে বাংলাদেশের ঘটে যাওয়া ভয়াবহ কাণ্ডের বহু ভিডিও।

উন্মত্ত উগ্রপন্থীদের দল একের পর এক পূজা মন্ডপে আক্রমণ শুরু করে। তবে এখানেই শেষ নয়, ইস্কনেও লুটপাট চালায় উগ্র জিহাদিদের দল। তাদের কোপ থেকে রক্ষা পায়নি মা কালীর মুর্তিও। অষ্টমীতে দুর্গা মূর্তি ভাঙচুরের পর শনিবার হামলা করা হয়েছে ফেনী জেলায়, সেখানে তছনছ করা হয়েছে জয়কালী মন্দির সহ একাধিক তীর্থস্থান।

Related Articles

Back to top button