আন্তর্জাতিকনতুন খবর

ভুগতে হলো আগ্রাসন নীতির ফল! এক ঝটকায় ৯৫,০০০ কোটি টাকা ক্ষতি চীনের

চীন যে শুধুমাত্র অন্য দেশের জমির প্রতি আগ্রাসন নীতি প্রয়াগ করে তা নয়, নিজের দেশের প্রকৃতির সাথেও একই ব্যাবহার করে থাকে। যার ফল এখন হাতে নাতে পাচ্ছে চীন। আসলে ইকোনমি শক্তিশালী করতে সবুজ ভূমি উচ্ছেদ করে একের পর এক শহর বসিয়ে ছিল চীন। নদীর গতিপথ পরিবর্তন করে এবং নদী সংকীর্ণ করে চলছিল শহর বসানোর কাজ। প্রকৃতির উপর হওয়া সমস্ত অত্যাচার ফিরিয়ে দিতে দেখা যাচ্ছে চীনে। আসলে মধ্যে চীনের হেনান প্রদেশে যে বন্যা এসেছে তা পুরো চীনকে কাঁপিয়ে তুলেছে। বন্যা সহ অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের সাথে মোকাবিলা করার জন্য চীন ড্যাম নির্মাণ করেছিল। তবে হেনানে যে বন্যা হয়েছে তা ১০০০ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন। ফলস্বরূপ কোনো ড্যাম জল ধরে রাখতে সক্ষম হয়নি।

জনগণের রোষ এখন স্বাভাবিক ভাবেই চীনের কমিউনিস্ট সরকারের উপর গিয়ে পড়েছে। অন্যদিকে চীনের সংবাদ মাধ্যমগুলি সরকারের দোষ ঢাকতে একের পর এক আর্টিকেল প্ৰকাশ করতে লেগে পড়েছে। বন্যার দরুন মৃতের সংখ্যা ৪০ ছাড়িয়েছে বলে জানা গেছে। যদিও এই সংখ্যা চীন সরকার লুকিয়েছে বলে একাংশের দাবি। বন্যার দরুন চীনে প্রায় ১৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

প্রবল বন্যার ফলে আর্থিকভাবেও চীন বড়ো ধরনের ঝটকা পেয়েছে। এখনও অবধি চীনের কমপক্ষে ১০ বিলিয়ন ডলার ক্ষতি হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। জানিয়ে দি, ১০ বিলিয়ন ডলার সংখ্যাটা এতটাই বড়ো যে এটা বিশ্বের বহু দেশের বার্ষিক বাজেট। বিশেষজ্ঞদের মতে চীনের এখনও অবধি প্রায় ৯৫ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। পুরো পরিসংখ্যান এলে তা স্পষ্ট হয়ে যাবে। উল্লেখ্য বিষয়, হেনান প্রদেশকে চাইনিজ সভ্যতার মূল উৎস স্রোত বলা হয়। এক সময় হেনান এলাকায় ব্যাপক সবুজ অরণ্য ছিল, যা ধ্বংস করে ওই এলাকায় এখন বড়ো বড়ো শহর বসিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মুষলধারে বৃষ্টির কারণে উক্ত এলকায় আসা বন্যা বিনাশকারী রূপ নিয়েছে। আচমকা বন্যা আসার কারণে এলাকার সড়ক জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। শপিং মল, মেট্রো ট্রেন, বিভিন্ন কার্যালয় একেবারে জলের তলায় পৌঁছেছে।

জানিয়ে দি, চীন টেকনোলজির দিক থেকে বেশ উন্নত। প্রাকৃতিক বিপর্যয় আটকানোর জন্য চীনের কাছে মূল্যবান বৈজ্ঞানিক সরঞ্জামাদির পাশাপাশি প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত টিম রয়েছে। তবে বন্যার দরুন মধ্যে চীনে যে প্রলয় নেমে এসেছে তা প্রতিরোধ করতে পূর্ন ব্যার্থ জিনপিং সরকার।

বিশেষজ্ঞদের মতে ১০০০ বছরে চীনে এমন বন্যা কখনো আসেনি। বন্যার কবলে ফেঁসে যাওয়া লোকজন এখন ভিডিও তৈরি করে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে নিজেদের অবস্থা ব্যাক্ত করছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় চীনের বেশকিছু ভয়ানক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে,

Related Articles

Back to top button