Press "Enter" to skip to content

মৃত্যু সামনে দেখে ভয়ে তঠস্থ নির্ভয়ার দোষী! বলল, দিল্লীর দূষণে মানুষ এমনিতেই মরে যাচ্ছে, তাহলে ফাঁসি কেন?

শেয়ার করুন -

নির্ভয়া (Nirbhaya) এর দোষীদের সামনে ফাঁসির দড়ি ঝুলছে। আর সেই কারণে নির্ভয়ার দোষীরা এতটাই ভয়ে আছে যে, তাঁরা এখন আজব আজব কথা বলা শুরু করেছে। নির্ভয়ার দোষী অক্ষয় কুমার সিংহ ফাঁসি থেকে বাঁচার জন্য একটি আজব বয়ান দিয়েছে। অক্ষয় কুমার বলেছে, দিল্লীতে দূষণের কারণে অর্ধেক মানুষ মরছে, তাহলে ফাঁসির কি দরকার? অক্ষয় কুমার সুপ্রিম কোর্টে ফাঁসির সাজার বিরুদ্ধে পুনর্বিচার আবেদন দাখিল করেছে, আর সেখানেই সে দিল্লীর দূষণের অজুহাত দিয়েছে। শুধু তাই নয়, মৃত্যু সামনে দেখে সে সত্যযুগ আর কলিযুগ এমনকি গান্ধীকে পর্যন্ত স্মরণ করেছে।

অক্ষয় কুমার জানিয়েছে, দিল্লী গ্যাস চেম্বার হয়ে গেছে। দিল্লীতে দূষণের কারণে এমনিতেই মানুষের আয়ু কমে যাচ্ছে, তাহলে আমাদের ফাঁসি কেন দেওয়া হচ্ছে? শুধু তাই নয় নিজের পুনর্বিচার আবেদনে বিশ্বের অনেক সিদ্ধান্তের সাথে সাথে সত্যযুগ আর কলিযুগ এমনকি মহত্মা গান্ধীরও উল্লেখ করেছে। আইনজীবী এপি সিং দ্বারা দায়ের করা এই আবেদনে বলা হয়েছে যে, সবাই জানে যে দিল্লী এনসিআর এ হাওয়া আর জলের অবস্থা কি। জীবন এমনিতেই কমে যাচ্ছে, তাহলে মৃত্যুর সাজা কেন?

অক্ষয় কুমার নিজের আবেদনে বলেছে যে, দিল্লীর আবহাওয়ার মান প্রতিদিন খারাপ হচ্ছে। রাজধানী গ্যাস চেম্বার হয়ে গেছে। এমনকি দিল্লীর জলে বিষ মেশানো আছে।

অক্ষয় নিজের আবেদনে বেদ পুরাণ আর উপনিষদের উল্লেখও করেছে। সে বলেছে সত্যযুগে মানুষ হাজার হাজার বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকত। ত্রেতা যুগেও মানুষ হাজার হাজার বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকত। কিন্তু কলিযুগে মানুষ শুধু ৫০ থেকে ৬০ বছর পর্যন্তই বাঁচে। খুব কম মানুষ ৮০ থেকে ৯০ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে।