নতুন খবররাজনীতি

মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে পাটনা শহরে মিছিল করছিল কংগ্রেস নেতারা! দৌড়িয়ে দৌড়িয়ে লাঠি দিয়ে পেটালো নীতীশের পুলিশ।

কংগ্রেস এমন একটা পার্টি যাদের রাজনীতি বেশিরভাগ সময় তোষণ ও মূল্য বৃদ্ধির উপর কেন্দ্রিক থাকে। এমনকি অটল বিহারী বাজপেয়ীর মতো বড়ো নেতাকে কংগ্রেস মূল্যবৃদ্ধির ইস্যু নিয়েই হারিয়ে দিয়েছিল। অবশ্য ক্ষমতায় এসে মূল্যবৃদ্ধির উপর লাগাম লাগানোর পরিবর্তে আরো মূল্য বৃদ্ধি উৎপন্ন করেছিল কংগ্রেস সরকার। বর্তমান সময়ের রাজনীতিতে মূল্যবৃদ্ধির ইস্যু দিন দিন কমতে চলেছে। কারণ সাধারণ মানুষের মনে ধারণা তৈরি হয়েছে, কোনো সরকার মূল্যবৃদ্ধি কমাতে সক্ষম নয়। বর্তমান সময়ে মানুষ মূল্য বৃদ্ধি কমানোর থেকে চাকরির সংখ্যা বৃদ্ধি, বেতন বৃদ্ধি ও সর্বোপরি দেশের আর্থিক উন্নতির উপর জোর দিচ্ছে। কারণ পুরো দেশের আর্থিক বৃদ্ধি প্রতিটি মানুষের জীবনে প্রভাব ফেলবে। তবে কংগ্রেস পার্টি তাদের পুরানো মূল্য বৃদ্ধি ইস্যু এখনও ছাড়তে রাজি নয়।

মূল্যবৃদ্বি ইস্যু নিয়ে বিহারের পাটনা () শহরে গতকাল মিছিল করতে বেরিয়েছিল কংগ্রেস পার্টি। কংগ্রেস পার্টি ওই মিছিলের নাম রেখেছিল, ‘ জন বেদনা মার্চ।’ তবে এই মিছিলের উপর কু নজর ছিল নীতিশ () সরকারের। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, পাটনাতে কংগ্রেস নেতারা ও কর্মীরা বিশাল মিছিল বের করেছিল। এই সময় নীতিশ এর সরকার মিছিলের সামনে বড়ো পুলিশ বাহিনী নামিয়ে দেয়। শুরু হয় কংগ্রেস পার্টি ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ। কংগ্রেস কর্মী ও নেতাদের উপর পুলিশ টিয়ার গ্যাস, জল কামান চালিয়ে দেয়। শুধু এই নয়, পুলিশ লাঠিচার্জ পর্যন্ত আরম্ভ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি পুলিশ দৌড়িয়ে দৌড়িয়ে লাঠিচার্জ করে। হালকা শীতের মধ্যে পুলিশের লাঠিচার্জ কংগ্রেস নেতাদের পলায়ন করতে বাধ্য করে। লাঠির আঘাত পেয়ে ১ ডজনের বেশি কংগ্রেসিরা আহত হয়ে ওই স্থানেই পড়ে থাকে। বেশকিছু কংগ্রেস নেতাকে পুলিশ হেফাজতে নেয়। অন্যান্য রাজ্যে ক্ষমতায় থাকাকালীন কংগ্রেস সরকার পুলিশের ব্যাবহার করে এমন বহু বিরোধী মিছিলের দমন করেছে। কিন্তু এখন নীতিশ সরকার কংগ্রেসের নীতিকে কংগ্রেস পার্টির বিরুদ্ধেই প্রয়োগ করা শুরু করেছে।

সংসদ সদস্যদের মধ্যে অখিলেশ সিং, এমএলসি প্রেমচাঁদ মিশ্র, রাজ্য সভাপতি মদন মোহন ঝাঁকে পুলিশ থানায় নিয়ে গেছিল। কংগ্রেস নেতাদের গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে আরএলএসপি প্রধান উপেন্দ্র কুশওয়াহাও কোতোয়ালি থানায় পৌঁছেছিলেন, যেখানে তিনি কংগ্রেসের মোর্চায় লাঠিচার্জের তীব্র নিন্দা করেন। উনি বলেন যে নীতীশ সরকার বিরোধীদের কণ্ঠস্বর দমন করতে চায়। তিনি বলেছিলেন যে সরকার চায় না যে বিরোধীরা কোনও ইস্যুটির বিরোধিতা করুক এবং আন্দোলন করুক। সরকার আমাদের উপর টিয়ার গ্যাস, জল কামান ছুঁড়ে এবং লাঠিচার্জ করে অত্যাচার করেছে।

Back to top button
Close