Press "Enter" to skip to content

২ ইঞ্চি ব্যান্ডেজের মধ্যে কিভাবে ঢাকা পড়লো ১৬ টি সেলাই! ঐশী ঘোষের আঘাতকে কেন্দ্র করে শুরু নতুন বিতর্ক।

শেয়ার করুন -

জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় (JNU) মামলায় দিল্লি পুলিশ অপরাধ শাখার বিশেষ তদন্ত দল (SIT) JNU শিক্ষার্থী ইউনিয়ন ঐশী ঘোষ সহ ৯ বামপন্থী ছাত্রকে অভিযুক্ত করেছে। CCTV ফুটেজ দেখার পর দিল্লি পুলিশ বামপন্থী ছাত্রদের অভিযুক্ত করেছে। দিল্লি পুলিশ সংবাদ সম্মেলনের পরপরই ঐশী ঘোষ একটি সংবাদ সম্মেলন করে নিজেকে নির্দোষ বলে উল্লেখ করেছিলেন। ঐশী ঘোষ এটাও বলেছিলেন যে দিল্লী পুলিশকে তিনি ভয় পান না। JNU এর হিংসার জন্য বামপন্থী ছাত্র ছাত্রীরা দোষারোপ ABVP এর ছাত্রদের উপর চাপিয়ে ছিল। তবে পুলিশ সমস্ত তদন্ত শেষে দাবি করেছে সমস্থ হিংসার পেছনে বাম ছাত্র ছাত্রীদের হাত রয়েছে।

হিংসার পেছনে কাদের হাত প্রমাণ হতে না হতেই এখন আরো এক নতুন বির্তক সামনে চলে এসেছে। আসলে ঐশী ঘোষ এখন যখন সংবাদ মাধ্যমের সামনে এসেছেন তখন তার মাথায় একটা ২ ইঞ্চির ব্যান্ডেজ দেখা গেছে। জানিয়ে দি, এর আগে কিছু সংবাদ মাধ্যম দাবি করেছিল যে ঐশী ঘোষের মাথায় ১৬ টি সেলাই পড়েছে।

এখন প্রশ্নঃ উঠেছে, ১৬ টি সেলাই কি মাত্র ২ ইঞ্চি ব্যান্ডেজের মধ্যেই রয়ে গেছে। যদিও এটা প্রায় অসম্ভব বিষয়। ইংরেজি সংবাদ মাধ্যম দি টেলিগ্রাফ দাবি করেছিল ঐশী ঘোষ হিংসার সময় আহত হয়েছিলেন এবং তার মাথায় ১৬ টি সেলাই পড়েছে। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ ঐশী ঘোষের রক্তকে আলতা বলে দাবি করেছিলেন।

তাই এখন ১৬ টি সেলাই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ বিতর্কের ঝড় উঠেছে। কিছুজন বলেছেন যার মাথায় ১৬ টি সেলাই পড়বে সে কোনোদিন এত তাড়াতাড়ি সুস্থ হতে পারবে না। একই সাথে ১৬ টি সেলাই ২ ইঞ্চির ব্যান্ডেজের মধ্যে থাক সম্ভব নয় বলেও দাবি করা হচ্ছে। এর আগে ঐশী ঘোষের কোন হাতে আঘাত পেয়েছে তা নিয়েও বিতর্ক তৈরী হয়েছিল। যদিও সেটাকে ফোটোশপ বলে কাউন্টার করেছে বাম পক্ষ।