নতুন খবরমতামত

বুদ্ধিজীবী, মিডিয়া সকলে ব্যাস্ত ঐশী ঘোষের মাথা ফাটা নিয়ে, কুমারগঞ্জের ধর্ষণকান্ড নিয়ে কারোর মুখে নেই একটাও শব্দ।

গত কিছুদিন ধরে দেশে কিছু না কিছু উপদ্রব লেগেই রয়েছে, কখনো কোথাও CAA ইস্যুতে দাঙ্গা হচ্ছে আবার কখনো JNU থেকে উপদ্রবের খবর সামনে আসছে। এখন বেশ কিছুদিন ধরেই JNU তে হিংসার ঘটনা চর্চায় আছে, যেখানে হিন্দুত্ববাদের বিরুদ্ধে লড়াই করা ঐশি ঘোষ এবং অন্যান্য অনেক পড়ুয়াদের মারধোর করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছিল। রবিবার সন্ধ্যায় অভিযোগ উঠেছে যে ঐশী ঘোষের উপর লোহার ব্যাট দিয়ে হামলা করেছে এবিভিপি সদস্যরা আর তার মাথা ফেটে রক্ত পড়ার এই অবস্থা দেখে দেশের বলিউড জগৎ, বুদ্ধিজীবী গ্যাং উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। এরপর অনেকেই ঐশি ঘোষের পাশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে এবং তার সাথে হওয়া এই ঘটনার বিরোধিতা করেছে। জনপ্রিয় অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোনও JNU তে ঐশী ঘোষের সঙ্গে হওয়া ঘটনার বিরোধিতা করার জন্য JNU র পাশে গিয়ে দাঁড়ায়।

 

এদিকে আবার কুমারগঞ্জে এক স্কুল ছাত্রী প্রমীলা বর্মনকে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা শিরোনামে এসেছিল। ধর্ষককারীরা প্রমীলার ধর্ষণ করে তাকে আগুনে জ্বালিয়ে দেয় সকালে জমিতে কৃষিকাজ করতে গিয়ে এমন বীভৎস দৃশ্য দেখে শিউরে উঠে স্থানীয় বাসিন্দারা। গেছে যে, ১৭ বছর বয়সী প্রমীলা গঙ্গাপুরের উদয় পঞ্চায়েতের পঞ্চগ্রাম এলাকার বাসিন্ধা, মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল সে।

রবিবার দুপুরে চাদর কেনার নাম করে সে বাড়ি দিয়ে বেড়ায় তারপর দিয়ে তার ফোন সুইচ অফ দেখাছিল, সেদিন অনেক খোঁজার পরও তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি, তারপর পরের দিন সকালে একটি নির্জন এলাকায় কালভার্টের হিউম থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখেন বেশ কিছু গ্রামবাসী এবং তারপরই প্রমিলার লাশকে এরকম ভয়াবহ রূপে উদ্ধার করে তারা। অনেকের আশঙ্কা আছে যে যেই মাঠ দিয়ে প্রমীলার লাশ

পাওয়া গেছিলো তার থেকে কিছু দূরেই রাত ভোর জুয়ার জলসা চলেছে। অনুমান করা হচ্ছিল সেখান থেকেই এই কাজ কারোর হতে পারে। এখন অবশ্য অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে লক্ষণীয় বিষয়, একই সময়কালে এই দুটি ঘটনা ঘটলো, যেখানে JNU এর ছাত্রী ঐশী ঘোষের মাথা ফেটে যাওয়ায় গোটা দেশ এতো উত্তেজিত হয়ে গেলো, সেখানে একটি স্কুল ছাত্রীর এত নির্মম ভাবে ধর্ষণ হয়ে এতো ভয়াবহ মৃত্যু হলো সেই দিকে কারুর কোনো মাথা ব্যাথা নেই। কোনো বুদ্ধিজীবী, বলিউডের অভিনেত্রী প্রমীলার বাড়িতে আসেননি।

Back to top button
Close