Press "Enter" to skip to content

‘অখণ্ড ভারত গড়তে বড় দাড়ি রেখেছে নরেন্দ্র মোদী” জ্যোতিষের বিশ্লেষণে আতঙ্কিত পাকিস্তান

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে পাকিস্তানের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুণ ভাইরাল হচ্ছে। ভাইরাল ভিডিওতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে আজব আজব দাবি করতে দেখা যাচ্ছে। জানিয়ে দিই, এই শো গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর নিও নেটওয়ার্কে প্রসারিত হয়েছিল, আর এখন এটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে।

জ্যোতিষী দাবি করেছেন যে, ‘২০১৯ এর নভেম্বর থেকে প্রধানমন্ত্রী মোদীর খারাপ সময় চলছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জ্যোতিষীর মধ্যে একজন হলেন বিজেপির বরিষ্ঠ নেতা মুরলী মনোহর জোশী। তিনিই প্রধানমন্ত্রীর সমস্ত জ্যোতিষীদের নিয়ন্ত্রণ করেন।” আপনাদের অবগত করিয়ে দিই, মুরলী মনোহর জোশী কোনও জ্যোতিষ না, তিনি পদার্থবিজ্ঞানের প্রোফেসর। তিনি এখানেই থেমে থাকেন নি, তিনি প্রধানমন্ত্রী মোদীকে নিয়ে আরও অনেক মনগড়া কথা বলতে থাকেন।

উনি আরও বলেন, ‘ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইচ্ছে করে নিজের দাড়ি কাটছেন না। তিনি নিজের চুলও কাটছেন না। তিনি অখণ্ড ভারতের স্বপ্ন পূরণ করতে যজ্ঞও করছেন। আর মোদীর গুরু মোদীকে বলছেন তিনি ১ নম্বর নেতা এবং কলকি অবতার।” ভারতের পরিকল্পনায় আতঙ্কে ভোগা জ্যোতিষী আশা জাহির করে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী অখণ্ড ভারত বানানোর স্বপ্ন পূরণ করতে পারবেন না।

পাকিস্তানের মহিলা সাংবাদিক নায়লা ইনায়ত একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। সেই ভিডিওতে একজনকে বলতে শোনা যাচ্ছে যে, ‘আপনি দেখেছেন যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দাড়ি আর চুল কাটছেন না। ওনার উদ্দেশ্য মারাঠি নায়ক ছত্রপতি শিবাজি এর মতন। শিবাজি ঔরঙ্গজেবের বিরুদ্ধে লড়াই লড়েছিলেন। মোদী ওনাকে নকল করার চেষ্টা করছেন। তিনি নিজেকে বড় দেখানোর জন্য সবকিছু করতে পারেন।”

উল্লেখ্য, শুধু পাকিস্তানেই না ভারতেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বড়বড় দাড়ি নিয়ে অনেক চর্চা হয়। কংগ্রেসের সাংসদ শশী থারুরও এই নিয়ে অনেক কিছু বলেছেন। শশী থারুর বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী দাড়ি বাড়িয়ে নিজেকে ঋষিরাজ হিসেবে দেখাতে চান।

আরেকদিকে, বাংলার রাজনীতিতেও নরেন্দ্র মোদীর দাড়ি বাড়ানো নিয়ে অনেক চর্চা চলছে। বাংলার অনেকে বিরোধী নেতাই দাবি করছেন যে, বাংলার নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে নরেন্দ্র মোদী দাড়ি বাড়াচ্ছেন। তিনি নিজেকে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মতো বানাতে চান। বাঙালীদের মন জয় করতেই তিনি এমন করছেন।