Press "Enter" to skip to content

দেশদ্রোহ এর মামলায় পাকিস্তানের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি পারভেজ মুশারফকে ফাঁসির সাজা দিলো আদালত

শেয়ার করুন -

পাকিস্তানের (Pakistan) ইতিহাসে প্রথমবার কোন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতিকে আদালত ফাঁসির সাজা দিলো। ইসলামাবাদের বিশেষ আদালত মঙ্গলবার পাকিস্তানের প্রাক্তন স্বৈরাচারী রাষ্ট্রপতি পারভেজ মুশারফকে (Pervez Musharraf) দেশদ্রোহ এর মামলায় ফাঁসির সাজা শোনালো। ওনাকে এই সাজা ২০০৭ সালে গোটা দেশে এমারজেন্সি লাগু করার জন্য দেওয়া হয়েছে। উনি দেশে এমারজেন্সি লাগু করার পর মার্শাল আইন জারি করে দিয়েছিলেন। পাকিস্তানের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি তথা প্রাক্তন সেনা প্রধান পারভেজ মুশারফ এখন দুবাইতে আছেন। ২০১৩ থেকে ওনার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহ এর মামলা চলছিল।

ইসলামাবাদের বিশেষ আদালত ৩১ মার্চ ২০১৪ সালে দেশদ্রোহ এর মামলায় পাকিস্তানের প্রাক্তন সেনা প্রধান পারভেজ মুশারফকে অভিযুক্ত বানিয়েছিল। উনি পাকিস্তানের ইতিহাসে প্রথম এমন ব্যাক্তি, যার বিরুদ্ধে সংবিধান অবমাননার জন্য মামলা চলে।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে নির্বাচনে জেতার পর পাকিস্তানে মুসলিম লীগের সরকার গঠন হয়। সরকার গঠনের পর প্রাক্তন সেনা প্রধান পারভেজ মুশারফের বিরুদ্ধে সংবিধান অবমাননা করার জন্য মোকদ্দমা দায়ের হয়।

 

অভিযুক্ত পারভেজ মুশারফ মাত্র একবার বিশেষ আদালতের সামনে পেশ হয়েছিলেন। এরপর তিনি আর কোনদিনও আদালতে জাননি। এর মধ্যে ২০১৬ সালে স্বাস্থের অবনতি হচ্ছে বলে অজুহাত দেখিয়ে তিনি বিদেশে চলে যান। তৎকালীন সরকার পারভেজ মুশারফের নাম এক্সিট কন্ট্রল লিস্ট থেকে হটিয়ে দেওয়ার পরই তাঁকে বিদেশে যাওয়া অনুমতি দেওয়া হয়। আর তখন থেকে তিনি দুবাইতে আছেন।