আন্তর্জাতিকনতুন খবর

চীনের বিরোধিতায় সরব হল পাকিস্তানিরা, গাইল ভারতের রাষ্ট্রীয় গীত ‘বন্দেমাতারম”! দেখুন সেই ভিডিও

নয়া দিল্লীঃ ভারতের (India) রাষ্ট্রীয় গান পাকিস্তানি (Pakistan) গাইছে। এটা একটি দুর্লভ ঘটনা কিন্তু রবিবার লন্ডনে ঠিক এমনটাই ঘটে গেলো। চীনের (China) দূতাবাসের বাইরে একটি বিক্ষোভ প্রদর্শনে কিছু পাকিস্তানি নাগরিক ভারতীয় নাগরিকদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চীনের বিরিধিতার সাথে সাথে ভারতের রাষ্ট্রীয় গান বন্দেমাতরমও (Vande Mataram) গাইল। এই বিক্ষোভ প্রদর্শনের আয়োজন চীনের বিস্তারবাদি নীতির বিরুদ্ধে প্রবাসী ভারতীয়দের দ্বারা করা হয়েছিল। আর এই বিক্ষোভ প্রদর্শনে পাকিস্তানি মানবাধিকার কার্যকরতা আরিফ আজকিয়াও অংশ নেন। উনি নিজের দেশের বর্তমান পরিস্থিতি আর প্রকৃত সত্য তুলে ধরায় আগাগোড়াই বিশ্বাসী। এর সাথে সাথে উনি ভারতীয়দের সাথে একসুরে চীন মুর্দাবাদ স্লোগানও দেন।

আজকিয়া বলেন, ‘আজ জীবনে প্রথমবার বন্দেমাতরম গাইলাম।” ওনার সাথে আমজাদ আয়ুব মীর্জাও ছিলেন, যিনি পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বাসিন্দা। তিনি পাকিস্তান সরকার দ্বারা পাক অধিকৃত কাশ্মীরে মানুষের উপর করা অত্যাচার আর অন্যায় বিরুদ্ধে আগাগোড়াই মুখর হন। এছাড়াও কয়েকজন করাচি এবং ইরানের মানুষও ছিলেন। তাঁরাও এই বিক্ষোভ প্রদর্শনে অংশ নেনে। এরা সবাই চীন দ্বারা তাদের ব্যাপারে নাক গলানো নিয়ে তিতিবিরক্ত।

মীর্জা বলেন, ‘আমি এই বিক্ষোভ প্রদর্শনে অংশ নেওয়া জন্য গ্লাসগো থেকে এসেছি। আমি পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বাসিন্দা। আমি পাকিস্তানের কবজায় থাকা একজন ভারতীয়। চীন সিপিইসি এর মাধ্যমে গিলগিট বাল্টিস্তানে তাণ্ডব করছে আর পাকিস্তানি সরকার তাদের সাথে এক হয়ে কাজ করছে।” ভারতীয়রা চীনের রাষ্ট্রপতি জিনপিং এর বিরুদ্ধে পোস্টার আর প্ল্যাকার্ড নিয়ে হাজির হয়েছিল। প্রবাসী ভারতীয়রা এরকম প্রদর্শন আমেরিকা, কানাডা এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলোতেও করেছে। চীনের বিরুদ্ধে বর্ধিত ক্ষোভ লন্ডনের রাস্তাতেও দেখা যায়। শনিবার রাতে চীনের দূতাবাসের বিল্ডিংয়ে ‘ফ্রি তিব্বত, ফ্রি হংকং আর ফ্রি উইঘুর” লেখা একটি পোস্টার দেখা যায়।

চীন দ্বারা শিনজিয়াং প্রান্তে উইঘুর মুসলিমদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘন করা ন্যে আমেরিকা চীনের সরকার আর তাদের প্রতিনিধিদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। গোটা বিশ্বই হংকংয়ের মানুষের বিরুদ্ধে অত্যাচারের তীব্র নিন্দা করেছে। ভারতীয়রা চীনের পণ্য বহিষ্কার করা শুরু করে দিয়েছে। জাপান থেকে শুরু করে অস্ট্রেলিয়া সমেত বিশ্বের অনেক দেশই চীনের বিরুদ্ধে মুখ খোলা শুরু করেছে। আর এটা দেখে পরিস্কার যে এবার সবাই চীনের স্বৈরাচারী নীতির বিরুদ্ধে সরব হচ্ছে।

Back to top button
Close