Press "Enter" to skip to content

‘মুখ্যমন্ত্রী বিজয়ন আর ওনার তিন মন্ত্রী সব জানত” সোনা পাচার কাণ্ডে কেরল হাইকোর্টে জানালো কাস্টম বিভাগ

শেয়ার করুন -

তিরুবনন্তপুরমঃ কাস্টম বিভাগ কেরলের হাইকোর্টে জানিয়েছে যে, রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন, ওনার তিন মন্ত্রী আর বিধানসভার স্পিকার আরব আমিরশাহির বাণিজ্য দূতাবাসের মাধ্যমে তিরুবনন্তপুরমে সোনা পাচারের গতিবিধি সম্পর্কে জানতেন। কাস্টম বিভাগ এই তথ্য সোনা পাচারকারীকাণ্ডে মূল অভিযুক্ত স্বপ্না সুরেশকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পেরেছে বলে জানায়।

রাজ্যে আগামী মাসে বিধানসভার নির্বাচন হতে চলেছে, আর তাঁর মধ্যে এই খবর প্রকাশ্যে আশায় সরকারের চাপ বেড়েছে। বলে রাখি, সোনা পাচারকাণ্ড গত বছর জুলাই মাসে সামনে এসেছিল। কাস্টম বিভাগ তিরুবনন্তপুরমে UAE বাণিজ্য দূতাবাসের এক আধিকারের নামে আসা একটি প্যাকেজে ৩০ কেজি সোনা উদ্ধার করেছিল।

কাস্টম বিভাগ জানায়, স্বপ্না সুরেশ দাবি করেছে যে মুখ্যমন্ত্রীর প্রাক্তন মুখ্য সচিব আর বরিষ্ঠ IAS আধিকারিক এম শিবশঙ্কর বাণিজ্য দূতাবাসের আধিকারিক আর পাচারকারী সিন্ডিকেটের মধ্যে মধ্যস্থতাকারী ছিলেন। স্বপ্না জানায় যে, সে আরবি ভাষা জানত বলে তাঁকে বৈঠকে অনুবাদ করার জন্য ডাকা হত।

হাইকোর্টে কাস্টম বিভাগের কমিশনার সুমিত কুমারের তরফ থেকে দায়ের করা নথী অনুযায়ী, স্বপ্না সুরেশ পরিস্কার ভাবে মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন, রাজ্যের তিন মন্ত্রী আর স্পিকারের অবৈধ গতিবিধি নিয়ে মুখ খুলেছে। বিভিন্ন মামলায় হাই প্রোফাইলের লোকদের সম্পৃক্ততা ও প্রতিক্রিয়া সম্পর্কেও এনারা তথ্য দিয়েছিলেন।