আন্তর্জাতিকনতুন খবর

প্রধানমন্ত্রী মোদীর বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতায় নেমেছিল উন্মাদীরা, মারধর খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি বেশকিছু বামপন্থী

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শুক্রবার দিন বাংলাদেশ সফরে থাকবেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের ৫০ তম বছর পূর্তি হতে চলেছে। সেই উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে বাংলাদেশ সরকার আমন্ত্রণ জানিয়েছে। ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রীকে গেস্ট অফ ওনার হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এই অনুষ্ঠান বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা শহরে অনুষ্ঠিত হবে।

মার্চ ২৬, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল। বাংলাদেশের এই স্বাধীনতায় ভারতের এক গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল। স্বাধীন হওয়ার আগে বাংলাদেশ পাকিস্তানের অংশ তথা পূর্ব পাকিস্তান হিসেবে পরিচিতি পেত। একদিকে যখন বাংলাদেশ তাদের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উদযাপনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে , তখন কিছু পাকিস্তান সমর্থক কট্টর ইসলামিক গ্রুপ বাংলাদেশে অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা করছে বলে খবর সামনে আসছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশ সফরে পৌঁছাবেন, এর বিরোধিতায় নেমে পড়েছে বাংলাদেশের বেশকিছু ইসলামিক গ্রুপ।প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সুরক্ষার জন্য বাংলাদেশের সুরক্ষা এজেন্সিগুলি বেশ সক্রিয়ভাবে কাজ শুরু করেছে। পাকিস্তান সমর্থিত ইসলামিক কট্টরপন্থী গ্রুপ হিফাজত হুনাকি দিয়েছে যে তারা ভারতের প্রধানমন্ত্রীর রাস্তা আটকে দেবে। জানিয়ে দি, নরেন্দ্র মোদীকে এয়ারপোর্ট থেকে সড়ক পথে যাত্রা করতে হবে।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ধরণের প্রয়াসের উপর কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার আদেশ জারি করেছেন। লক্ষণীয় বিষয় যে, দিন প্রতিদিন ভারত বাংলাদেশের সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। সম্প্রতি ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্ক জানিয়েছে যে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ট্রান্সপোর্ট ব্যাবস্থা যদি আরো ভালো হয়ে যায় তাহলে দুই দেশের আয় ১০% অবধি বৃদ্ধি পেতে পারে।

অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী মোদীর বাংলাদেশ সফরকর কেন্দ্র করে ছাত্রদের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে দ্বন্দ দেখা গেছে। ‘প্রগতিশীল ছাত্র জোট’ প্রধানমন্ত্রী মোদীর বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতায় নেমে ঢাকা ইউনিভার্সিটির টিচার্স স্টুডেন্ট সেন্টারের সামনে বিরোধ প্রদর্শনের আয়োজন করেছিল। বামপন্থী গ্রুপ প্রগতিশীল ছাত্র জোটের উপর ছাত্র লীগ হামলা চালিয়েছে বলে খবর সামনে এসেছে। এতে বেশকিছু বামপন্থী মনোভাবাপন্ন ছাত্র নেতা আহত হয়েছে যাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ছাত্র লীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস বলেছেন, যদি কেউ নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে তাহলে পিটিয়ে তার চামড়া তুলে নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button