নতুন খবররাজনীতি

ফের বিপাকে সেনা! উদ্ভব ঠাকরের শপথ গ্রহণের আগে উঠল অজিত পাওয়ারকে মুখ্যমন্ত্রী করার দাবি

মহারাষ্ট্রে শিবসেনা, রাষ্ট্রবাদী কংগ্রেস পার্টি (NCP) আর কংগ্রেস মিলে মহাজোট করে সরকার গড়ছে। এই জোটে শিবসেনা প্রধান উদ্ভব ঠাকরেকে (udvab thackeray) বিধায়ক দলের নেতা নির্বাচিত করা হয়েছে। উদ্ভব ঠাকরে বৃহস্পতিবার সন্ধেয় মুখ্যমন্ত্রী পদের শপথ নিতে চলেছেন। এর আগে মহারাষ্ট্রের কয়েক জায়গায় সবাইয়ের নজর কারছে। এই পোস্টার গুলোতে এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ারকে হবু মুখ্যমন্ত্রী বানানো হয়েছে। এই পোস্টার অজিত পাওয়ারের বিধানসভা এলাকায় বারামতিতে লাগানো হয়েছে।

পোস্টারে এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারের ছবিও লাগানো হয়েছে। মহারাষ্ট্রে এই সময় এই পোস্টারকে অনেক গুরু গম্ভীর ভাবে দেখা হচ্ছে। উল্লেখ্য, ২২ নভেম্বর পর্যন্ত অজিত পাওয়ারের নেতৃত্বে শিবসেনা, এনসিপি আর কংগ্রেস মিলে সরকার গড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। শনিবার সকালে আচমকা দেবেন্দ্র ফড়নবিশ মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিয়ে নেন। শোনা যায় যে, অজিত পাওয়ার দলের হাত ছেড়ে বিজেপির সাথে কয়েকজ বিধায়ককে নিয়ে জোট করেছিল।

শপথ গ্রহণের কিছু পরেই এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার সাংবাদিকদের জানান, অজিত পয়ায়ার পার্টির সাথে গদ্দারি করেছে। শনিবার সন্ধের মধ্যে এনসিপির সমস্ত বিধায়ক অজিত পাওয়ারের সঙ্গ ত্যাগ করে শরদ পাওয়ারের কাছে চলে আসেন। আর রবিবার অজিত পাওয়ারকে দলে ফিরে আসার জন্য অনুরোধ করা হয়। সোমবার সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে বলা হয় যে, দেবেন্দ্র ফড়নবিশ আর অজিত পাওয়ারের সরকার যেন বুধবার সন্ধে পর্যন্ত সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করে।

এরপর অজিত পাওয়ার ইস্তফা দিয়ে আবারও নিজের কাকা শরদ পাওয়ারের কাছে ফেরত চলে আসেন। মঙ্গলবার সন্ধেয় শিবসেনা, এনসিপি আর কংগ্রেস মিলে মহা জোটের ঘোষণা করে। আর শিবসেনা প্রধান উদ্ভব ঠাকরেকে মুখ্যমন্ত্রী বানানোর সিদ্ধান্ত হয়। এই বৈঠকের কিছু পরেই অজিত পাওয়ার আর শরদ পাওয়ারের মিটিং হয়। বুধবার এনসিপির বৈঠকে অজিত পাওয়ার পার্তির প্রধান নেতাদের সাথে মঞ্চ ভাগ করে নেন।

Related Articles

Back to top button