নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

ভবানীপুর হাইভোল্টেজ উপনির্বাচনে মমতা ব্যানার্জীর বিরুদ্ধে প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল কেন! সামনে এল কারণ

ভবানীপুরে হাইভোল্টেজ উপনির্বাচনের দিনক্ষণ স্থির হয়ে গিয়েছে। আগামী ৩০ শে সেপ্টেম্বর সেখানে রয়েছে উপনির্বাচন। তৃণমূল মনোনীত প্রার্থী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিজেপি প্রার্থী হচ্ছেন আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল (Priyanka Tibrewal)। এর আগে দুবার নির্বাচনে পরাজিত হলেও, তিনি বিজেপির ঊধ্বতন নেতৃত্বের ভরসার পাত্রী। তার উপরেই নির্ভর করে আছে বিজেপির ভাগ্য।

তিনি রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে ওঠার আগে আসানসোলের সাংসদ তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র আইনজীবী হিসেবে ছিলেন, পরবর্তীকালে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বর্তমান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর ভরসাযোগ্য প্রিয়পাত্রী হয়ে ওঠেন প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। তিনি বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন ২০১৪ সালের অগস্ট মাসে।

১৯৮১ সালে জন্ম প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালের। তিনি কলকাতার অন্যতম নামী স্কুল ওয়েল্যান্ড গোলস্মিথ স্কুলে পড়ার পর স্নাতকের জন্য দিল্লি চলে যান। ওখান থেকে ফিরে হাজরা ল’কলেজে আইন বিষয়ে পড়াশোনা করেন তিনি। এরপর তাইল্যান্ড অ্যাসামপশন ইউনিভার্সিটি থেকে মানবসম্পদে এমবিএ পড়েছেন তিনি।

২০১৫ সালে কলকতা পুরসভা নির্বাচনে ৪৮ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী ছিলেন তিনি কিন্তু তিনি পরাজিত হন। ২০২০ সালের আগস্টে পেয়ে যুব মোর্চার রাজ্য সহ-সভাপতির দায়িত্ব পান তিনি। শেষ বিধানসভায় এন্টালিতে তৃণমূলের কাছে প্রায় ৫৯ হাজার ভোটে পরাজিত হন।

হেরে গেলেও দমে যাননি প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল। এই প্রিয়াঙ্কাই এখন ভরসা বিজেপির। তিনি নির্বাচন পরবর্তী হিংসার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় বিজেপির প্রধান মুখ হিসেবে কলকাতা হাই কোর্টে দাঁত দাঁত চেপে লড়াই করেছেন। তার জন্য‌ই পাঁচ বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ রায়দান করেছেন- খুন, ধর্ষণ, অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলায় সিবিআই তদন্তে নামবে এবং অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ মামলাগুলোর জন্য সিট তৈরি হবে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজনৈতিক হিংসার বিরুদ্ধে তার লড়াই প্রভাবিত করেছে দলকে। এই কারণেই মমতার বিরুদ্ধে ভবানীপুরে লড়বেন প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল।

Related Articles

Back to top button