নতুন খবররাজনীতি

একমাস না যেতেই জোটে ফাটল! এবার রাহুল গান্ধীকে সাভারকারের বই পড়ার পরামর্শ দিলো শিবসেনা

দিল্লীর রামলীলা ময়দানে কংগ্রেস ভারত বাঁচাও র‍্যালির () মাধ্যমে কেন্দ্র সরকারকে আক্রমণ করে। এই র‍্যালিতে দেওয়া রাহুল গান্ধীর () বয়ান মহারাষ্ট্রে কংগ্রেস আর শিবসেনার () জোটে ফাটল ধরানোর কাজ শুরু করেছে। রাহুল গান্ধী নিজের রেপ ইন্ডিয়া বয়ানে ক্ষমা চাইবেন না বলে জানিয়ে দেন। উনি বলেছিলেন আমি সাভারকার না যে ক্ষমা চাইব। ওনার এই বয়ানে কংগ্রেসের জোট সঙ্গি শিবসেনা চরম ক্ষুব্ধ। কারণ শিবসেনে বীর সাভারকারকে নিজেদের আদর্শ বলেই মনে করে। রাহুল গান্ধীর এই বয়ান শিবসেনার সেই নায়ককে অপমান করছে, যার আদর্শে শিবসেনা এতদিন ধরে চলছে।

মহারাষ্ট্রে শিবসেনা, কংগ্রেস আর রাষ্ট্রবাদী কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) এর মহা বিকাশ অঘারি জোট সরকার চলছে। ক্ষমা চাওয়া নিয়ে রাহুল গান্ধী সাভারকারের নাম নিয়েছেন কারণ, আন্দামানের সেলুলার জেলে বন্দি হিন্দুত্ববাদী নেতা বিনায়ক দামোদর সাভারকার ১৪ নভেম্বর ১৯১৩ সালে ব্রিটিশ সরকারের কাছে ক্ষমা চেয়েছিল। যদিও এই কাহিনী কতটা সত্যি আর কতটা মিথ্যে সেটা এখনো পর্যন্ত খোলাসা হয়নি। বিজেপি দ্বারা রাহুল গান্ধীর রেপ ইন্ডিয়া বয়ানে রাহুল গান্ধীকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছিল। কিন্তু রাহুল গান্ধী বলেছিলেন আমার নাম সাভারকার না, আমি ক্ষমা চাইব না।

আরেকদিকে শিবসেনা মুখপাত্র তথা রাজ্যসভার সাংসদ সঞ্জয় রাউত বলেন, রাহুল গান্ধীর এই বয়ান দুর্ভাগ্যজনক। আমি মহারাষ্ট্রের কংগ্রেস নেতাদের আবেদন করছি যে, সাভারকারের বলিদান সম্বন্ধ্যে জানতে তাঁরা রাহুল গান্ধীকে সাভারকারের কয়েকটি বই উপহার দিক।

শিবসেনার সাংসদ সঞ্জয় রাউত বলেন,  ‘ আমরা মহত্মা গান্ধী আর পণ্ডিত নেহেরুর সন্মান করি। আপনারাও বীর সাভারকারের অপমান করবেন না দয়া করে। বুদ্ধিমানদের ইশারাই যথেষ্ট। জয় হিন্দ।” আরেকটি ট্যুইট করে উনি লেখেন, ‘আপনি আজ যদি সাভারকারের নামে ভুল কথা বলেন, তাহলে দেশের যুবরা উত্তেজিত হয়ে উঠবে। সাভারকার আজও দেশের নায়ক, উনি দেশের গর্ব।”

Back to top button
Close