নতুন খবরভারতবর্ষ

CAA এর প্রতিবাদে রাস্তায় দাঙ্গা করা কট্টরপন্থীদের ধিক্কার জানালেন সুপারস্টার রজনীকান্ত।

আইন নিয়ে প্রত্যেকে নিজের নিজের মতামত প্রকাশ করতে শুরু করেছে। দেশের বেশিরভাগ জনতা এই আইনের সমর্থনে রয়েছে। সুপারস্টার রজনীকান্তও () দেশের চর্চিত বিষয়ে মতামত জানিয়েছেন। অন্যদিকে কিছু রাজনৈতিক ও মুসলিম সমাজের একাংশ এর বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছে। দাবি করা হচ্ছে এর আওতায় মুসলিমদেরও সামিল করা হোক। আসলে এর আওতায় পাকিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আগত হিন্দু, বৌদ্ধ,জৈন, খ্রিস্টানদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। এখন দাবি উঠছে পাকিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আগত মুসলিম ও রোহিঙ্গাদেরও নাগরিকত্ব দেওয়া হোক। এই দাবি নিয়ে বহু যায়গায় হৈচৈ শুরু হয়েছে। দেশের নানা প্রান্তে দাঙ্গা ফ্যাসাদের পরিস্থিতি উৎপন্ন হয়েছে।

 

অনেক জায়গায় লোকজনকে ভুল বুঝিয়ে রাস্তায় আন্দোলন করানো হচ্ছে। নিয়ে মুসলিমদের ভুল বুঝিয়ে দিয়ে তদের দাঙ্গার জন্য ব্যাবহার করা হচ্ছে বলেও খবর সামনে আসছে। আসলে অনেকের ধারণা দেশে হলে ১৯৭১ সালের ডকুমেন্ট চাওয়া হবে। এই ভুয়ো ধারণার জন্য অনেকে রাস্তায় নেমে ক্ষোভ প্রকাশ করছে। আসল দেশে এর জন্য সরকার অন্য ব্লু প্রিন্ট তৈরি করবে। অসমে যে এর পক্রিয়া তা পুরো দেশে হবে না। দেশ জুড়ে লাগুর পক্রিয়া ভিন্ন হবে। দেশজুড়ে হলে সাক্ষী দিয়েও নিজেকে নাগরিক প্রমান করা যাবে।

সুপারস্টার রজনীকান্তও এ বিষয়ে তার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি একটি টুইট বার্তায় এটি উল্লেখ করেছেন। তাঁর অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে টুইট করে বলেছেন, “সহিংসতা ও দাঙ্গা কোনও সমস্যার সমাধান হিসাবে ব্যবহার করা উচিত নয়। আমি ভারতের জনগণকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে এবং ভারতের সুরক্ষা এবং স্বার্থের পুরো যত্ন নিতে বলব। এইভাবে তিনি জনসাধারণকে সহিংসতা থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। ”

অর্থাৎ রজনীকান্ত দেশের সম্পত্তি নষ্টকারী কট্টরপন্থীদের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন। দেশেড সম্পত্তি নষ্টকারী ও দাঙ্গাকারীদের বিরুদ্ধে মুখ খোলার অনেকে উনার উপর আক্রমন করেছেন। তবে অনেকে রজনীকান্তকে সমর্থন করে টুইট করেছেন।

Back to top button
Close