Press "Enter" to skip to content

ফেসবুক বিজেপি সমর্থক নয় বিরোধী ! ভোটের আগে বাংলার ১৫ টির বেশি বিজেপি সমর্থক পেজ ডিলেট করেছিল ফেসবুক

শেয়ার করুন -

ফেসবুক হোক বা টুইটার সোশ্যাল মিডিয়ার প্রত্যেক অংশে নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তার সামনে ২০১৪ সাল থেকেই কোনঠাসা হয়ে রয়েছে বাকি দলের নেতারা। যে কারণে বিজেপির প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় বিরোধীদলগুলির ঈর্ষা প্রকাশের ঘটনা বহুবার দেখা গেছে। সম্প্রতি এখন আরো একবার সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজেপির জনপ্রিয়তার উপর নতুন বিতর্ক খাঁড়া করে দিয়েছে কংগ্রেস সহ বিরোধী দলগুলি।

জানিয়ে দি, আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম the wall street journal বেশকিছু সময় ধরে ফেসবুক ও বিজেপি সম্পর্কিত এমন খবর প্ৰকাশ করেছিল। সূত্রের বাহান দিয়ে এই সংবাদমাধ্যম বিজেপির বিরুদ্ধে ফেসবুককে প্রভাবিত করার অভিযোগ তুলেছিল। এরপর বামপন্থী কিছুজন প্রতিবাদের নামে ফেসবুক থেকে নিজেদের একাউন্ট ডিলেট করে নেয়। যদিও তাদের এই প্রতিবাদে কেউ তেমন মাথা ঘামায়নি। লক্ষণীয়, the wall street journal এর বিরুদ্ধে ফেক খবর প্রকাশিত করা ও টাকা নিয়ে অপপ্রচার করার বহু অভিযোগ রয়েছে। আর এই সংবাদ মাধ্যমের দাবিকে আরো জোরালো করে বিরোধীরা ফেসবুক বিতর্ককে শিরোনামে পৌঁছে দিয়েছে।

কংগ্রেস সহ বিরোধী দলগুলির তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে যে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বিজেপি দ্বারা প্রভাবিত। দাবি এও যে, ২০১৯ লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি নাকি বিরোধীদের সমালোচনা রুখতে ফেসবুকের সাহায্য নিয়েছিল। এর জন্য বিজেপির নির্দেশ মতো ফেসবুক ১৪ টি বিজেপি বিরোধী পেজেক ডিলেট করে দেয় বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।

অবশ্য বিরোধীদের দাবি ও ২০১৯ এ লোকসভার আগে ঘটা বাস্তবতার সাথে আকাশ পাতাল অন্তর দেখা যাচ্ছে। আসলে ২০১৯ লোকসভার আগে ফেসবুকে শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গে যা হয়েছিল তা চোখ কপালে তোলার মতো। ২০১৯ সালের ১ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির প্রায় ১৫ টি পেজ উড়িয়েছিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। যার মধ্যে ১০ টি পেজ এমন ছিল যেগুলির ফেসবুক পপুলারিটি পশ্চিমবঙ্গে শীর্ষে ছিল।

লোকসভার আগে শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গ থেকে নিম্মলিখিত পেজগুলি ডিলেট করে দেওয়া হয়েছিল।

১) india – ভারতবর্ষ – ৮ লক্ষেরও বেশি ফলোয়ার এই পেজ কেবলমাত্র ভারতীয় সেনা ওপর পোস্ট করতো, মাঝে মাঝে কেন্দ্র সরকারের সমর্থনে পোস্ট করেছিল

২) পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি চাই – ৫.৮ লক্ষ এর বেশি ফলোয়ার

৩) নরেন্দ্র মোদি সমর্থক (চৌকিদার সমর্থক )- ৬ লক্ষ এর বেশি ফলোয়ার

৪) Locket Chatterjee Supporters – ৩ লক্ষ এর বেশি ফলোয়ার
৫) বার বার মোদি সরকার – ২ লক্ষ এর বেশি ফলোয়ার
৬) কেচ্ছা – keccha the knowledge centre
৭) Dilip Ghosh supporters – ১ লক্ষ এর বেশি ফলোয়ার
৮) Bjp West Bengal – ২ লক্ষ এর বেশি ফলোয়ার
৯) mukul roy supporters – ১ লক্ষ এর বেশি ফলোয়ার
১০) লকেট চ্যাটার্জী সমর্থক – ৫০ হাজার+ ফলোয়ার

শুধু এই নয়, Bengal Hindu Community – 3 লক্ষের বেশি মেম্বার থাকা গ্রুপকে ফেবুক কর্তৃপক্ষ সরাসরি ডিলেট করেছিল। এছাড়াও India – ভারতবর্ষ নামের
৮ লক্ষেরও বেশি মেম্বারযুক্ত গ্রুপ ও ALL BENGAL RSS নামের গ্রুপেকে ডিলেট করা হয়েছিল। এমনিতেই ফেসবুকে হিন্দুত্ববাদী একাউন্ট ও পোস্ট উড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ নিত্য ঘটনা।

প্রসঙ্গত পশ্চিমবঙ্গে এই পেজ ও গ্রুপগুলির জনপ্রিয়তা দেখার মতো ছিল। পেজগুলির ব্যাপক এনগেজমেন্ট লাইক, শেয়ার দেখেই আন্দাজ করা যেত। যা বিজেপি বিরোধিদের রীতিমতো চাপে ফেলতো এনিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। লক্ষণীয় বিষয়, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে সমর্থন করা ও কেন্দ্র সরকারের কাজের প্রশংসা করা এত পেজ ডিলেট হলেও তৃণমূল বা সিপিএম এর কোনো পেজ ডিলেট হয়নি। ভাবার কথা, শুধুমাত্র এই রাজ্যে বিজেপির সমর্থন করা পেজগুলি এত বড়ো ধাক্কা খেলে পুরো ভারত জুড়ে ফেসবুক কিভাবে বিজেপি সমর্থকদের কন্ঠরোধ করেছিল।

জানিয়ে দি, লোকসভা ভোটের আগে ভারতজুড়ে প্রায় ৭০২ টি বড়ো পেজকে ফেসবুক ডিলেট করেছিল। যার মধ্যে বিজেপিকে সমর্থন করা অধিকাংশ বড়ো পেজ ছিল। এর মধ্যে নিন্মে উল্লেখিত তিনটি নামি পেজও সামিল ছিল।

1) The india eye – 26 lakh+ followers
2) India Report Card – 14 lakh+ followers
3) post card – 12 lakh + followeers

অবশ্য এত কিছু সত্ত্বেও পশ্চিমবঙ্গের সাথে সাথে পুরো দেশে বিজেপির জনপ্রিয়তা তুঙ্গে ছিল। যার প্রমান লোকসভার ভোটের ফলাফলে দেখা মেলে। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ায় এত দমনের পরেও এখনও অবধি বিজেপির লোকপ্রিয়তা কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস, বামপন্থী ও আম আদমি পার্টিকে চিন্তায় ফেলার মতো।