নতুন খবরভারতবর্ষ

২০২৪ এর মধ্যে দেশের প্রতিটি ব্লকে গেরুয়া ধ্বজ তোলার পরিকল্পনা রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের

ব্যাঙ্গালুরুঃ ব্যাঙ্গালুরুর চেন্নহল্লীর জনসেবা বিদ্যা কেন্দ্রে শুক্রবার ১৯ মার্চ থেকে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের অখিল ভারতীয় প্রতিনিধি সভার দুই দিবসিয় বৈঠক শুরু হয়েছে। এই প্রথম নাগপুর ছেড়ে অন্য কোথাও এই বৈঠক করা হচ্ছে সঙ্ঘের তরফ থেকে। আর এই বৈঠক নাগপুর থেকে ব্যাঙ্গালুরুতে নিয়ে আসার প্রধান কারণ হল মহারাষ্ট্রে বেড়ে চলা করোনা রোগীর সংখ্যা। আজকের এই বৈঠকে সরসঙ্ঘচালক মোহন ভাগবত এবং সরকার্যবাহ ভাইয়াজি জোশি উপস্থিত ছিলেন।

এই বৈঠকে রাম মন্দির নিধি সমর্পণ অভিযান নিয়ে বলা হয় যে, এই অভিযানে সঙ্ঘের স্বয়ংসেবকরা ৫ লক্ষ ৪৫ হাজার ৭৩৭টি জায়গায় গিয়েছে। ২০ লক্ষ সঙ্ঘের স্বয়ংসেবক এই অভিযানে অংশ নিয়েছিলেন। নিধি সমর্পণ অভিযান অনুযায়ী সঙ্ঘের স্বয়ংসেবকরা ১২ কোটি ৪৭ লক্ষ ২১ হাজার পরিবারের কাছে গিয়েছিল। তাঁরা শুধু দেশের বড়বড় শহরেই যায়নি, স্বয়ংসেবকরা প্রত্যন্ত গ্রামে গ্রামে গিয়ে রাম মন্দিরের জন্য দান সংগ্রহ করেছে। বৈঠকে বলা হয় যে, স্বয়ংসেবকরা নাগাল্যান্ড, মিজোরাম, মেঘালয়, লাদাখ, আন্দামান্দের গ্রামে গ্রামে পৌঁছে গিয়েছিল।

এছাড়াও এই বৈঠকে সঙ্ঘ দ্বারা পরিচালিত সেবা ভারতীয় তথ্যও পেশ করা হয়। ওই তথ্যে বলা হয় যে, সেবা ভারতীর তরফ থেকে করোনা মহামারীর সময় ৯২ হাজার ৬৫৬ জায়গায় সেবাকার্য চালানো হয়েছে। ৫ লক্ষ ৬০ হাজার স্বয়ংসেবক এই মহামারীর সময় সেবা ভারতীর সঙ্গে যুক্ত হয়ে সক্রিয় ভাবে কাজ করেছেন। ৭৩ হাজারের বেশি বাড়িতে রেশন পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

৫ কোটির বেশি মানুষকে খাবার বণ্টন করা হয়েছে। ৯০ লক্ষ মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। ২০ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিকদের সাহায্য করা হয়েছে আর আড়াই লক্ষ ভবঘুরে/ভিক্ষুকদের সহায়তা করা হয়েছে। সঙ্ঘের এই বৈঠকে সঙ্ঘের সহ-সরকার্যবহ মনোমহন বৈদ্য জানিয়েছেন যে, স্বয়ংসেবকেরা যেভাবে কাজ করছে তাতে আগামী তিন বছরের মধ্যে দেশের প্রতিটি ব্লকে গেরুয়া ধ্বজ উড়বে।

Related Articles

Back to top button