নতুন খবরভারতবর্ষ

৩ কোটি মানুষকে ভোজন, ৩৮ লক্ষ মানুষকে রেশন! চিন আর পাকিস্তান সীমান্তে এভাবেই মানুষের সাহায্য করছে RSS

নয়া দিল্লীঃ গোটা বিশ্ব সমেত ভারতও (India) করোনা ভাইরাসের মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই করে চলেছে। আর এই লড়াইয়ে রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘ (Rashtriya Swayamsevak Sangh – RSS) নিজেদের দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করছে। দেশের এই সঙ্কটের সময় দেবদূত হয়ে মানুষের সাহায্য করা RSS এর স্বয়ংসেবকদের প্রশংসা পঞ্চমুখ হয়েছে বিরোধীরাও। সংঘ দেশের সেই দুর্গম এলাকায় বিশেষ করে নজর দিচ্ছে, যেখানে সরকারও সহজে পৌঁছাতে পারেনা। মায়ানমার, বাংলাদেশ সীমান্ত আর পাকিস্তান সীমান্তেও অভাবী মানুষের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে সংঘের স্বয়ংসেবকরা।

জম্মু কাশ্মীরে সংঘ নজর কাড়ার মতো কাজ করছে। ‘দৈনিক জাগরণ” এ প্রকাশিত একটি খবর অনুযায়ী, গোটা দেশে সংঘের তিন লক্ষের বেশি কর্মী ৩ কোটি ১০ লক্ষ মানুষকে ভোজন দেওয়ার সাথে সাথে ৩৮ লক্ষের বেশি পরিবারের কাছে কাঁচামাল পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছে। সবথেকে বড় ব্যাপার হল অভাবী মানুষদের ধর্ম, জাতি এবং সম্প্রদায় না দেখেই সংঘের স্বয়ংসেবকেরা তাদের সেবা করে চলেছে। ২৬ লক্ষের থেকে বেশি মানুষকে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। ৬০ হাজার মানুষকে আয়ুর্বেদিক ওষুধ দেওয়া হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় সেবা ভারতীর মহামন্ত্রি শ্রবণ কুমার জানান, এই দুঃসময়ে গোটা ভারতে সেবা ভারতীর কর্মীরা মানুষের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে। গোটা দেশে প্রয়োজন অনুযায়ী ত্রাণ কার্য চালানো হচ্ছে। এর আগে বলা হয়েছিল যে, সেবা ভারতীর ২.১ লক্ষ স্বয়ংসেবক ত্রাণের জন্য এগিয়ে এসেছে। সেবা ভারতী দেশে মোট ১২০০ সংস্থার সাথে যোগাযোগে আছে। এর সাথে সাথে তাঁরা ওই ১২০০ সংস্থার সাথে কাজ করে এটা সুনিশ্চিত করছে যে, কোন মানুষ যেন ত্রাণ থেকে বাদ না যায়।

দক্ষিণ ভারতে সংঘের ৭৭ হাজার কর্মী ত্রাণ দেওয়ার কাজে লেগে আছে। কেরল, তামিলনাড়ু, অন্ধ্র প্রদেশ, তেলেঙ্গানা আর কর্ণাটকে সংঘের কর্মীরা কাজে লেগে আছে। লকডানের মধ্যে ৩৩ লক্ষ মানুষকে সংঘের সঞ্চালিত ক্যাম্প থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। সবথেকে বেশি কর্মী কেরলে অ্যাক্টিভ আছে। কেরলে বয়স্ক মানুষদের চুল কাটারও কাজ করছে RSS এর স্বয়ংসেবকরা। বাড়ি বাড়ি সবজি পৌঁছে দেওয়ার কাজে লেগে আছে সংঘের কর্মীরা। দিল্লীর একটি চার্চে ৫০ টি পরিবার ফেঁসে আছে, সেখানেও ত্রাণ কার্য চালাচ্ছে সংঘের কর্মীরা।

নর্থ-ইস্টে RSS এর কর্মীরা ত্রাণ কার্য চালাচ্ছে, সেখানে ইসাই সম্প্রদায়ের মানুষদের কাছে কোন বৈষম্য ছাড়াই ত্রাণ দিচ্ছে আরএসএস এর কর্মীরা। জম্মু কাশ্মীর সমেত অনেক রাজ্যে মুসলিম বহুল এলাকা গুলোতে ত্রাণ দিচ্ছে আরএসএস। ঝাড়খণ্ডের গোড্ডায় এক স্বয়ংসেবক যার নিজের বাড়িতে দুই বেলার সময় নেই সেও লাগাতার অভাবী মানুষদের কাছে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছে। ওই স্বয়ংসেবকের নাম সুবোধ হরিজন। উনি পাহাড়ে থাকা ২৫০০ আধিবাসি পরিবারের কাছে রেশন পৌঁছে দিয়েছেন। স্থানীয় স্বয়ংসেবকেরা সুবোধের সাহায্য করছে।

Back to top button
Close