আন্তর্জাতিকনতুন খবর

শ্রীলঙ্কায় নতুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হতেই মোদীর কূটনীতি শুরু! চীনকে ঝটকা দিতে শ্রীলঙ্কাকে নিজের পক্ষে করছে ভারত।

ভারতের (India) প্রতিবেশী দেশ শ্রীলঙ্কায় (Srilanka) নির্বাচন হবে, আর ভারত খবর রাখবে না সেটা কখনোই সম্ভব নয়।শ্রীলঙ্কায় গোটাবায়া রাজাপাকসের (Gotabaya Rajapaksa) জয়ের পরে, যেখানে তিনি বিশ্বজুড়ে অভিনন্দন বার্তা পেয়েছিলেন, অভিনন্দনকারীদের মধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ছিলেন সবার প্রথমে।টুইটারে প্রধানমন্ত্রী মোদী প্রথমে গোটবায়াকে এই জয়ের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছিলেন। তবে গতকাল সন্ধ্যেই যা খবর সামনে এসেছিল তা দক্ষিণ এশিয়ার কূটনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যারা দক্ষিণ এশিয়ার কূটনৈতিক নিয়ে উৎসাহী থাকেন তারা ভারতের পদক্ষেপ দেখে অবাক হয়েছিলেন।

গতকাল হঠাৎ করেই ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর শ্রীলঙ্কায় পৌঁছেছিলেন এবং সেখানেই তিনি শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোটবায়ার সাথে দেখা করেছেন। এর সাথে, রাষ্ট্রপতি হওয়ার পরে গোটবায়ার সাথে দেখা করার জন্য এস জয়শঙ্কর প্রথম বিদেশী অতিথিতে পরিণত হয়েছেন। এসময় এস জয়শঙ্কর জয়ের জন্য তাকে অভিনন্দন জানান এবং প্রধানমন্ত্রী মোদীর পক্ষ থেকে ভারতে আসার আমন্ত্রণ জানান। গোটাবায়া ভারত সফরের আমন্ত্রণটি গ্রহণ করেন এবং ঘোষণা করেন যে তিনি ২৯ নভেম্বর ভারত সফর করবেন। অর্থাৎ রাষ্ট্রপতি হিসাবে গোতাবায়ার প্রথম বিদেশ সফরটি স্বয়ং ভারতের হবে এবং এটিই ভারতের বৃহত্তম কূটনৈতিক জয়।

জানিয়ে দি, শ্রীলঙ্কার উপর চীনের একটা বড়ো প্রভাব আছে। যা ভারতের জন্য ভালো সংকেত নয়। তাই ভারত সরকার শ্রীলঙ্কাকে নিজের পক্ষে করে নিতে চেষ্টা চালাচ্ছে। শ্রীলঙ্কার উপর চীনের যে প্রভাব তৈরি হয়েছে তার জন্য অবশ্য ভারত নিজেই দায়ী। আসলে কংগ্রেস আমলে শ্রীলঙ্কা ভারতের কাছে দু দু বার সাহায্য চেয়েছিল। একবার সন্ত্রাসবাদ দমনের জন্য, দ্বিতীয়বার উন্নয়নের জন্য। দু বারই ভারতের মনমোহন সিং এর সরকার শ্রীলঙ্কাকে সাহায্য করতে অস্বীকার করে।

সেই লাভ তুলে নেয় চীনের সরকার। চীন দুই বারই শ্রীলঙ্কার পাশে দাঁড়িয়ে পড়ে। দু বার সাহায্যে হাত বাড়ানোর কারণেই শ্রীলঙ্কার উপর চীনের প্রভাব বৃদ্ধি পায়। ধীরে ধীরে চীন শ্রীলঙ্কাকে ঋণের জালে ফাঁসাতে থাকে। এখন পরিস্থিতি এমন যে শ্রীলঙ্কার একটা বন্দর ১০০ বছরের জন্য চীন লিজ নিয়ে ফেলেছে। যা ভারতের জন্য মোটেও ভালো বিষয় নয়। এখন ভারত সরকার বিষয়টিকে কাউন্টার করার চেষ্টা করছে। ওই বন্দরের নিকটে ভারত একটা এয়ার পোর্ট শ্রীলঙ্কার থেকে লিজ নিয়েছে, যাতে শ্রীলঙ্কার উপর চাপ সৃষ্টি করে রাখা যায়। এমন জটিল বিষয়বস্তুর কারণে গতকাল বিদেশমন্ত্রীর শ্রীলঙ্কা যাত্রা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

Back to top button
Close