নতুন খবররাজনীতি

শচিনকে তুষ্ট করতে ব্যর্থ হল রাহুল-প্রিয়াঙ্কা! অবশেষে সরানো হল সমস্ত পদ থেকে

নয়া দিল্লীঃ রাজস্থানে অশোক গেহলট (Ashok Gehlot) আর শচীন পাইলটের (Sachin Pilot) মধ্যে চলা বিবাদের মাঝেই পাইলটের উপ-মুখ্যমন্ত্রী আর রাজ্য সভাপতির পদ ছিনিয়ে নিলো কংগ্রেস। ওনার জায়গায় গোবিন্দ সিং ডোটসারাকে নতুন রাজ্য সভাপতি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও শচীন পাইলটের সমর্থক বিধায়কদেরও মন্ত্রী পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। শচীন পাইলট ছাড়া আরও দুই কংগ্রেস বিধায়ককে মন্ত্রী পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার হওয়া কংগ্রেসের বিধায়ক দলের বৈঠকে ১০২ জন বিধায়ক অংশ নিয়েছিলেন। বৈঠকে সর্বসম্মতিতে পাইলটকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

শচীন পাইলটকে তুষ্ট করার জন্য রাহুল গান্ধী থেকে শুরু করে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী এবং কংগ্রেসের অনেক নেতাই চেষ্টা করেন। সুত্র অনুযায়ী, শচীন পাইলট (Sachin Pilot) রাহুল গান্ধীর (Rahul Gandhi) সাথে দেখা করা তো দূরের কথা কথাও বলতে রাজি নন। এছাড়াও তিনি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সাথেও কথা বলতে চান না। সুত্র অনুযায়ী, শচীন জানিয়েছেন যে, কংগ্রেসের কারোর সাথেই কোন ফর্মুলাতে কোন কথা হয়নি।

রাজস্থানে রবিবার থেকে পলিটিক্যাল ড্রামা জারি আছে। সোমবার মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের আবাসে জয়পুর কংগ্রেস বিধায়ক দলের বৈঠক হয়। বৈঠকে কংগ্রেসের বিধায়ক সংখ্যা নিয়ে এখনো সাসপেন্স জারি আছে। বিধায়ক দলের বৈঠকের পর কংগ্রেস বিধায়কদের হোটেলে শিফট করা হয়েছে।

রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট দাবি করছেন যে ওনার কাছে ১০৯ জন বিধায়কের সমর্থন আছে। রাজস্থানে ক্ষমতা ধরে থাকতে হলে ১০১ জন বিধায়কের সমর্থন চাই। যদিও, সুত্র অনুযায়ী, শচীন পাইলট জানিয়েছে যে, গেহলট সরকারের কাছে ক্ষমতা ধরে রাখার মতো সংখ্যা নেই। আর যদি থাকতই, তাহলে উনি ওনার সমর্থক বিধায়কদের হোটেলে কেন শিফট করত? হোটেল নিয়ে যাওয়ার বদলে ওনাকে গভর্নরের কাছে নিয়ে যাওয়া উচিৎ ছিল বিধায়কদের। সুত্র অনুযায়ী, শচীন পাইলট দাবি করা জানাচ্ছে যে ওনার কাছে কংগ্রেসের ২৫ জন বিধায়কের সমর্থন আছে।

Back to top button
Close