নতুন খবরভারতবর্ষ

CAA এর বিরোধিতা করে কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় ঝাঁ কবুল করলেন ইসলাম! সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু জোর চর্চা।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (CAA) বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে নানা জায়গায় আন্দোলন শুরু হয়েছে। কিছু জায়গায় আন্দোলন হিংসার রূপ নিয়ে নিয়েছে। পশ্চিবঙ্গে কট্টরপন্থীদের ব্যাপক উপদ্রব দেখা গেছে, উত্তরপ্রদেশে এখনও হিংসা অব্যাহত রয়েছে। যদিও উত্তরপ্রদেশে পুলিশ আইন কানুন ব্যাবস্থা নিয়ন্ত্রণ রাখার ভরপুর প্রয়াস চালাচ্ছে। প্রায় ২২ জন কট্টরপন্থীকে গুলি মেরে হত্যা করা হয়েছে। এই ২২ জন আন্দোলনের নামে আতঙ্কবাদী গতিবিধি চালাচ্ছিল বলে জানা গেছে। এছাড়াও এই সমস্থ দাঙ্গা ফ্যাসাদে আতঙ্কবাদী সংগঠনগুলি জড়িত রয়েছে বলেও জানা গেছে। PFI এর মতো কট্টর ইসলামিক সংগঠনও এই আন্দোলনের সাথে জড়িত রয়েছে।

অন্যদিকে পুলিশের হাতে বেশকিছু বাংলাদেশি মুসলিমও গ্রেফতার হয়েছে যারা সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করছিল। CAA আইনের প্রতিবাদ জানিয়ে রোহিঙ্গা ও বাংলাদেশি মুসলিমরা বেশকিছু জায়গায় উপদ্রব করেছে। আসলে CAA আইনের অনুযায়ী তিনটি প্রতিবেশী দেশ থেকে আগত শরনার্থীরা নাগরিকত্ব পাবে। কিন্তু কিছুজন দাবি করেছে এই আইনের আওতায় রোহিঙ্গা মুসলিম ও বাংলাদেশি মুসলিমদের আনা হোক। যাতে তারাও ভারতের নাগরিকত্ব পায়। কংগ্রেস খোলাখুলিভাবে CAA এর বিরোধিতা করেছে। সোনিয়া গান্ধীর বিশেষ টিমের সদস্য CAB পাস হওয়ার আগেই ঘোষণা করেছিলেন যে বিল পাস হলে তিনি মুসলিম হয়ে যাবেন অর্থাৎ ইসলাম কবুল করবেন।

হর্ষ মান্দের বলেছিলেন যদি CAB পাস হয়ে যায় তবে তিনি ইসলাম কবুল করে নেবেন। এখন উনি ইসলাম কবুল করেছেন কিনা তা নিয়ে কোনো খবর নেই। তবে কংগ্রেসের এক নেতা CAA এর প্রতিবাদে ইসলাম কবুল করেছেন বলে দাবি করা হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করা হচ্ছে কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় ঝাঁ (Sanjay Jha) ইসলাম কবুল করে নিয়েছেন। তবে এ নিয়ে সঞ্জয় ঝাঁ নিজে কিছু মন্তব্য বা বিবৃতি দেননি। তবে সঞ্জয় ঝাঁ সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এক লক্ষণীয় ইঙ্গিত দিয়েছেন।

সঞ্জয় ঝাঁ তার টুইটার হ্যান্ডেল একটা ছবি প্রকাশ করেছেন। সেখানে সঞ্জয় ঝাঁ ইসলামিক টুপি পরে ছবি দিয়েছেন। ইসলামিক টুপি পরা ছবিতে সঞ্জয় ঝাঁ new profile pic লিখে ক্যাপশন দিয়েছেন। লোকজন টুইটার হ্যান্ডেল উনাকে জিজ্ঞাসা করেছেন যে তিনি কবে ইসলাম কবুল করেছেন। তবে এ নিয়ে কোনো উত্তর প্রকাশ করেননি। যার জন্য পুরো বিষয়টি অন্ধকারের মধ্যে রয়েছে। সঞ্জয় ঝাঁ CAA এর প্রতিবাদে ইসলাম কবুল করেছেন কিনা তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ার বেশ চর্চা শুরু হয়েছে।

Related Articles

Back to top button