আন্তর্জাতিকনতুন খবর

৫৫ বছরের বৃদ্ধের কাছে ৯ বছরের মেয়েকে বিক্রি আফগানিস্তানে, বাবা বলল ‘এটা তোমার বেগম”

নয়া দিল্লিঃ বর্তমানের আফগানিস্তানে কাবুলিওয়ালাদের জীবন দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে। এখন দু’বেলার খাবারের জন্যও নিজেদের সন্তানকে বিক্রি করতে হচ্ছে তাঁদের। আবদুল মালিকের পরিবারের সঙ্গেও এমনই কিছু ঘটে গিয়েছে, যার জন্য তাঁরা তাঁদের ৯ বছরের নাবালিকাকে মেয়ে পরবানা মালিককে একজন ৫৫ বছরের বৃদ্ধের কাছে বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছে। বিক্রি করার পর আবদুল শুধু এটাই বলেছে, ‘একে মারধর করবে না, এটা এখন তোমার বেগম”

পরবানা CNN-কে জানিয়েছে, ‘আমার বাবার কাছে খাবার জন্য কিছুই ছিল না, এই কারণে আমাকে বিক্রি করে দিয়েছে। আমাদের পরিবারের পেট ভরানোর জন্য না রুটি ছিল, আর না চাল, আটা ছিল।” পরবানার বাবা আবদুল মালিক জানায়, ‘নিজের মেয়েকে বিক্রি করে আমিও ভালো নেই। রাতে আমার ঘুম আসেনা।”

আবদুল জানায়, সে অনেক জায়গায় কাজ খুঁজেছে আর আত্মীয়দের কাছ থেকেও ধার নিয়েছে। শুধু তাই নয়, দুজন স্বামী-স্ত্রী ভিক্ষাও চেয়েছি, কিন্তু এরপরেও কিছু মেলেনি। সব শেষে নিজের মেয়েকে বিক্রি করতে হয়, কারণ পরিবারের সবাই কয়েকদিন ধরে খেতে পারেনি।

আবদুল নিজের বাধ্যকতা নিয়ে বলে, ‘আমাদের কাছে আর কোনও পথ ছিল না। আমাদের পরিবার ৮ জনের। বাকিদের বাঁচিয়ে রাখার জন্য ওকে বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছি।” বলে দিই, পরবানার পরিবার বিগত চার বছর ধরে ডিসপ্লেসমেন্ট ক্যাম্পে থাকে। অনেক খাটনির পর তাঁরা কেবল ২ পাউন্ডই পায়। কিন্তু পরবানাকে বিক্রি করে তাঁরা ২ লক্ষ আফগানি টাকা পেয়েছে। এই টাকায় তাঁরা কয়েকমাস টিকে থাকতে পারবে।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, পরবানা বড় হয়ে শিক্ষিকা হতে চেয়েছিল। কিন্তু তাঁর সেই স্বপ্ন পূরণের আগেই তাঁরা বাবা তাঁকে টিকে থাকার জন্য বিক্রি করে দেয়। পরবানা এই কথা আগেই জেনেছিল, সে অনেকবার তাঁর বাবাকে বোঝানোর চেষ্টাও করেছিল। কিন্তু কোনও কিছুই খাটেনি পাপী পেটের সামনে।

Related Articles

Back to top button