Press "Enter" to skip to content

গেরুয়া শিবিরে যোগ দিচ্ছেন অভিনেতা অরিন্দম শীল? বিজেপির নেতার সঙ্গে চায়ে পে চর্চা করে বাড়ালেন জল্পনা

শেয়ার করুন -

কলকাতাঃ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি তুঙ্গে রাজ্যে। শাসক থেকে বিরোধী সবাই নিজের মতো করে আখের গুছিয়ে নিতে ব্যস্ত। রাজ্যে প্রথমবারের মতো ক্ষমতায় আসার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে বিজেপি। আরেকদিকে, রাজ্যে নিজেদের ক্ষমতা ধরে রাখতে তৎপর হয়েছে শাসক দলও। তবে নির্বাচনের আগে একের পর এক নেতা, বিধায়ক, মন্ত্রী, সাংসদ দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া বেশ ব্যাকফুটে শাসক দল তৃণমূল। যদিও বেশকিছু দিন ধরে তৃণমূল থেকে নেতা ভাঙিয়ে নিজেদের দলে নেওয়ার প্রক্রিয়া বন্ধ করে রেখেছে বিজেপি।

তবে এবার বিজেপির পক্ষ থেকে বাংলার চলচ্চিত্র জগতে নিজেদের অস্তিত্ব প্রমাণ করার কাজ শুরু হয়েছে। বিগত কিছুদিনে টলিউডের অনেক অভিনেতা/অভিনেত্রী বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। আর তাঁদের মধ্যে অন্যতম হল যশ দাশগুপ্ত এবং তৃণমূলের প্রাক্তন যুব সহসভাপতি হিরণ চট্টোপাধ্যায়।

বিজেপিরে তরফ থেকে দাবি করা হয়েছিল, টলিউডের আরও তারকারা আগামী দিনে পদ্ম শিবিরে নাম লেখাবেন। আর সেই নিয়ে বিজেপির নেতারা পুরোদমে কাজ করেও চলেছে। আর এরই মধ্যে বিজেপির নেতা শঙ্কুদেব পণ্ডা এবং টলিউডের অভিনেতা তথা পরিচালক প্রযোজক অরিন্দম শীলের সাক্ষাৎ নিয়ে জল্পনা ছড়াল রাজনৈতিক মহলে।

অরিন্দম শীল তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচালিত। বেশকিছুদিন আগে অরিন্দম শীল বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে জল্পনা ছড়িয়েছিল। কিন্তু এরপর তিনি নিজেই খোলসা করেন যে তিনি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন না। আর এরপরেও বিজেপি নেতার সঙ্গে ওনার সাক্ষাৎ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

এছাড়াও কিছুদিন আগে প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জির সঙ্গে দেখা করেছিলেন বিজেপির নেতা। ওনাকে অমিত শাহের জীবনী এবং কর্মজীবন নিয়ে আধারিত একটি বই উপহারও দেওয়া হয়েছিল। সেই সময় প্রসেনজিৎকে নিয়েও জোর জল্পনা উঠেছিল রাজ্য রাজনীতির মহলে। কিন্তু এরপর প্রসেনজিৎ নিজেই জানিয়ে দেন যে তিনি রাজনীতিতে নামবেন না। আর এবার অরিন্দম শীলকে নিয়েও একই গুঞ্জন উঠছে আবার। তবে এই সাক্ষাৎ কি কারণে হয়েছে, সেটা জানা যায়নি।