নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

শীতলকুচি কাণ্ডে নয়া মোড়, কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালায়নি বলে দাবি করলেন প্রত্যক্ষদর্শী! দেখুন ভিডিও

কলকাতাঃ শীতলকুচির গুলিকাণ্ড নিয়ে রাজ্যে রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে। কোচবিহারের SP দেবাশিস ধর জানিয়েছিলেন যে, ৩০০-৩৫০ লোক এসে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে লোকাল অস্ত্র নিয়ে ঘিরে ফেলে তাঁদের হাতিয়ার কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এরপর কেন্দ্রীয় বাহিনী আত্মরক্ষার খাতিরে গুলি চালায়। বাহিনীর গুলিতে চারজনের মৃত্যু হয়। শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথের এই ঘটনা নিয়ে CISF অন্তর্বর্তী তদন্ত করছে বলে সুত্রের খবর। কিন্তু এরই মধ্যে নিজেকে প্রত্যক্ষদর্শী দাবি করা একজন চাঞ্চল্যকর তথ্য পেশ করেছেন।

শীতলকুচির বাসিন্দা দিনয় বর্মণ নিজেকে ওই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বলে দাবি করছেন। তিনি জানিয়েছেন চারটে বাইকে করে লোক এসেছিল বুথে। তাঁরা ভয় দেখিয়ে ভোটারদের বুথ ছাড়া করছিল। সেই সময় তাঁরা ফায়ারিং করে এবং তাঁদের ফায়ারিংয়ের পর এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। তিনি জানান, সেদিন কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালায় নি। বাইক আরোহীদের চালানো গুলি তাঁরও পায়ে লাগে বলে দাবি করেন দিনয় বর্মণ।

দিনয়বাবু বলেন, চারজন এসে যখন বুথে ভোটারদের ভয় দেখাচ্ছিল তখন তিনি সেখান থেকে সরে যান। এবং বাইক আরোহীদের গুলি তাঁর পায়ে এসে লাগে। তখন তিনি নিজের প্রাণ বাঁচাতে বাড়িতে চলে যান। দিনয়বাবু জানান সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ এই ঘটনা ঘটে।

আপনাদের বলে রাখি, বাংলার একটি দৈনন্দিন সংবাদ মাধ্যম Calcutta News ওই প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ান নিয়েছেন। তাঁদের রিপোর্টের ভিত্তিতেই আমাদের এই প্রতিবেদনটি করা। এখানে প্রত্যক্ষদর্শীর মন্তব্য সম্পূর্ণ নিজের ব্যক্তিগত। সেই তথ্য আমাদের পক্ষে যাচাই করা সম্ভব হয়নি। আশাকরি তদন্তের মাধ্যমে আসল সত্য উঠে আসবে।

এছাড়াও শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে সকাল ১০টা নাগাদ এই কাণ্ড ঘটে। কিন্তু ওই ব্যক্তি দাবি করেছেন যে, তিনি সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ গোলাগুলি দেখেছেন। এখন প্রশ্ন হল শীতলকুচিতে আনন্দের মৃত্যুর ঘটনার সঙ্গে গুলিকাণ্ডের ঘটনা উনি গুলিয়ে ফেলেন নি তো?

Related Articles

Back to top button