নতুন খবরভারতবর্ষরাজনীতি

যেই বিধায়করা গতবার বাঁচিয়েছিল গেহলট সরকার, এবার তাঁরাই পাইলটের সমর্থক! উদ্বেগ বাড়ছে কংগ্রেসে

জয়পুরঃ রাজস্থানে জারি রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে সোমবার সচিন পাইলট বহুজন সমাজ পার্টি থেকে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া বিধায়কদের সঙ্গে কথা বলেন। সুত্র অনুযায়ী, পাইলট ওই বিধায়কদের নিজেদের দাবি জোরালো ভাবে পেশ করার কথা বলেছেন। সোমবার বিএসপি থেকে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া সমস্ত ছয় বিধায়ক মিটিং করেছেন। তাঁরা এই মিটিং জয়পুরের বিধায়ক সন্দীপ যাদবের আবাসে করেছেন। বৈঠকে তিন বিধায়ক সশরীরে হাজির ছিলেন আর তিনজন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়েছিলেন।

বৈঠকে ওই বিধায়করা বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি আর নিজেদের এখনও পর্যন্ত মন্ত্রী না বানানো নিয়ে চর্চা করেন। সন্দীপ যাদব এই মিটিংয়ে বলেছেন, অনেক বিভাগে মন্ত্রী নেই তাই মন্ত্রী মণ্ডলের বিস্তার হওয়া দরকার। তিনি আশা জাহির করে বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট খুব শীঘ্রই মন্ত্রীমণ্ডলের বিস্তার করবেন।

দেড় বছর আগে বিএসপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া বিধায়কদের মন্ত্রী বানানোর প্রশ্নে সন্দীপ যাদব বলেন, আমরা কংগ্রেসে যোগ দিয়ে গেহলট সরকারকে মজবুত করেছি, এই কারণে মুখ্যমন্ত্রীর উচিৎ আমাদের সম্মান রাখা।

বিধায়ক রাজেন্দ্র গুধা মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটকে আক্রমণ করে বলেন, ১১ মাস আগে সচিন পাইলটের নেতৃত্বে যখন ১৯ জন বিধায়ক ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন, তখন আমরা ছয়জন বিধায়ক আর ১০ জন নির্দলীয় বিধায়ক যদি পাশে না দাঁড়াতাম, তাহলে আজ গেহলট সরকারের পতনের প্রথম বর্ষপূর্তি হত। তিনি বলেন, কংগ্রেস হাইকম্যান্ড এটা বুঝতে পারছে না যে, সরকার তখনই পড়ে যেত কিন্তু আমরা বাঁচিয়ে দিয়েছি।

বলে দিই, গত বছর জুন মাসে সচিন পাইলটের বিদ্রোহের পর ছয় বিধায়কের সমর্থনে গেহলট সরকার সঙ্কটের পরিস্থিতি থেকে বেঁচে গিয়েছিল। সেই মুহূর্তে এদের মধ্যে তিনজন বিধায়ককে মন্ত্রী বানানো আর বাকিদেরকে আয়োগ বোর্ডে দায়িত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু এই ছয় বিধায়ক আবার জানিয়েছিলেন যে, তাঁরা বিনা শর্তে সমর্থন দিয়েছিল। আর এখন একবছর পর তাঁরা মন্ত্রীত্ব আর পদ না পাওয়ায় অশোক গেহলট সরকারকে চাপ দিচ্ছে।

Related Articles

Back to top button