Press "Enter" to skip to content

অজিত পাওয়ারের বিরুদ্ধে থাকা দুর্নীতি মামলা তুলে নিয়েছে বিজেপি ? মিথ্যা খবর প্রকাশ করলো পশ্চিমবঙ্গের কিছু সংবাদমাধ্যম।

শেয়ার করুন -

মিথ্যা খবর ছড়ানোর জন্য এখন নামি দামি মিডিয়া হাউসগুলিও কুখ্যাত হয়ে উঠতে শুরু হয়েছে। কখনো লালকেল্লা বিক্রির খবর, কখনো রেলের বেসরকারিকরণ, ইত্যাদি ইত্যাদি নানা গুজব রটিয়ে দিতে ব্যাস্ত হয়ে পড়েছে সংবাদমাধ্যমগুলি। মেইনস্ট্রিম মিডিয়ার এই নোংরা খেলার সবথেকে বড়ো শিকার হচ্ছে সাধারণ উদার ভারতীয় জনগণ। যারা চোখ বুজে অন্ধের মতো সংবাদমাধ্যমগুলিকে বিশ্বাস করে। গুজব রোটানোর জন্য দিল্লী কেন্দ্রিক সংবাদ মাধ্যমগুলির থেকেও বেশি এগিয়ে পশ্চিমবঙ্গের কিছু সংবাদ মাধ্যম। রেলের বেসরকারিকরণ এর গুজব ছড়ানোর পর এবার মহারাষ্ট্রের রাজনীতি নিয়ে মিথ্যা খবর সম্প্রসারণে নেমেছে কিছু সংবাদ মাধ্যম।

প্রচার করা হয়েছে, মহারাষ্ট্রে বিজেপি অজিত পাওয়ারের সাথে মিলে সরকার গঠন করার পর অজিত পাওয়ারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলা তুলে নিয়েছে। দাবি, অজিত পাওয়ার (Ajit Pawar)যেহেতু এখন বিজেপির সাথে মিলে সরকার গঠন করেছে তাই দেবেন্দ্র ফড়নবিষের (Devendra fadnavis) সরকার সব দুর্নীতি মামলা তুলে নিয়েছে। অজিত পাওয়ারের সাথে জড়িত সেচ সংক্রান্ত সমস্ত ফাইল বন্ধ করে তাকে ক্লিনচিট দেওয়ার দাবিও করেছে তথাকথিত এগিয়ে রাখা সংবাদ মাধ্যমগুলি।

আজ টাক এবং নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের মতো মূলধারার মিডিয়া সংস্থাগুলি ছাড়াও ন্যাশনাল হেরাল্ডের মতো এজেন্ডা প্রচারকারী পোর্টালগুলি এই মিথ্যা খবর ছড়িয়ে দিয়েছে। সাংবাদিক রাজদীপ সারদেশাই এবং কংগ্রেস নেতা রণদীপ সিং সুরজেওয়ালাও ভুয়ো খবর ছড়িয়ে দিতে পিছিয়ে ছিলেন না। কিছু সংবাদ মাধ্যম বলেছে সরকার গঠন করার জন্য অজিত পাওয়ারকে এটা উপহার দিয়েছে বিজেপি।

যদিও আসল সত্য একদমই আলাদা। যে ফাইলগুলিকে বন্ধ করা হয়েছে সেগুলি অজিত পাওয়ারের সাথে সম্পর্কিত নয়। এই কেলেঙ্কারিগুলি অজিত পাওয়ারের সাথে কোনোভাবে সম্পর্কিত ছিল না। সংবাদ মাধ্যমগুলি নিজেদের মতো করে গুজব ছড়িয়ে দেওয়ার কাজ করেছে। এমনকি যে ফাইল গুলো বন্ধ করা হয়েছে সেগুলিকে আবার খোলাও সম্ভব। এখানা অজিত পাওয়ারের কোনো সংযোগ মাত্র নেই।