নতুন খবরভারতবর্ষ

ধর্ষকদের এনকাউন্টার করার জন্য ঢাক ঢোল বাজিয়ে আনন্দ করলো ছাত্রছাত্রীরা। বললো, আজ দিদির আত্মা শান্তি পেল।

হায়দ্রাবাদে (Hyderabad) হওয়া এনকাউন্টার একদিকে যেমন সেকুলার গ্যাংকে কান্নায় ভাসিয়ে দিয়েছে, তেমনি দেশের জনতার মন খুশিতে ভরিয়ে দিয়েছে। এনকাউন্টার নিয়ে বহুজন বহু রকম প্রতিক্রিয়া জানাতে শুরু করেছেন। বামপন্থী নেতা সীতারাম ইয়েচুরি ঘটনার নিন্দা করেছেন। সীতারাম ইয়েচুরি টুইট করে বলেছেন প্রতিহিংসা কখনোই ন্যায়প্রদান করা হতে পারে না। বামপন্থী নেতা বলেন এটা সভ্য সমাজের কাজ হতে পারে না। এইভাবে সমস্যার সমাধান হলে তা সমাজের সুরক্ষার উপর প্রশ্ন তুলবে।

 

ঘটনার উপর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে সীতারাম ইয়েচুরি আরো বলেন, বিচারহীন হত্যাকাণ্ড নারীদের নিয়ে আমাদের উদ্বেগের প্রতিক্রিয়া হতে পারে না। তিনি বলেন যে প্রতিশোধ কখনই ন্যায়বিচার দিতে সক্ষম নয়। এর সাথে তিনি প্রশ্ন উত্থাপন করেন যে ২০১২ সালে দিল্লিতে নির্ভয়া গণধর্ষণ মামলার পরেও দেশে কেন কঠোর আইন প্রয়োগ হচ্ছে না। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী (Mamata Banerjee) বলেছেন পুলিশ নিজের হাতে আইন তুলে নিয়ে ভুল করেছে। অন্যদিকে ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তেলেঙ্গানার স্থানীয় লোকজন যা করেছে তা দেখার মতো।

ঘটনা ঘটার পর, NH-44 কে কেন্দ্র করে বহু লোক জমায়েত হতে শুরু করে। বিশাল সংখ্যায় পুলিশ ও পুলিশ অফিসাররা জমা হতে থাকে। এরপর এলকার মানুষ পুলিশের উপর ফুল ছড়িয়ে পুলিশকে ধন্যবাদ জানায়। শুধু এই নয়, কিছুজন মিষ্টি নিয়ে এসে বিতরণ করতে শুরু করে। স্থানীয় যুবকরা হায়দ্রাবাদ পুলিশ জিন্দাবাদ শ্লোগান দিতে পুলিশকে সমর্থন ও ধন্যবাদ জানায়। হায়দ্রাবাদের স্কুল ছাত্র ছাত্রীরা ঢাক, ঢোল বাজিয়ে আনন্দ করে। কিছু জায়গায় ছাত্র ছাত্রীরা হলি খেলে আনন্দ করেছে তো কিছু জায়গায় জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে এনকাউন্টারের সমর্থন করেছে। ছাত্র ছাত্রীরা বলে, রেড্ডি দিদির আত্মা আজ শান্তি পেয়েছে। এনকাউন্টার করার জন্য ছাত্র ছাত্রীরা পুলিশকে ধন্যবাদ জানায়।

Students in patna

পুলিশ জানিয়েছেন তারা সকাল বেলা অপরাধীদের নিয়ে ঘটনাস্থলে এসেছিল পুরো ঘটনা কিভাবে হয়েছে তা জানার জন্য। এরপর অভিযুক্তদের ঘটনাটি রি-ক্রিয়েট করার জন্যে বলা হলে তারা পুলিশের অস্ত্র কেড়ে সংঘর্ষ এ নেমে পরে। পুলিশ এড জবাবে অপরাধীদের এনকাউন্টার করে মেরে ফেলে।

Related Articles

Back to top button