নতুন খবরভারতবর্ষ

মমতার সঙ্গে দেখার করার পর ভুলভাল দাবি স্বামীর, হাতেনাতে ধরা পড়ে গেল সম্মান

নয়া দিল্লিঃ চীন (China) ইস্যু নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টির (Bharatiya Janata Party) দুজন সাংসদ একে অপরের সঙ্গে তর্কে জড়ালেন। উল্লেখ্য, বিজেপির প্রবীণ নেতা তথা রাজ্যসভার সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী (Subramanian Swamy) বৃহস্পতিবার অরুণাচল প্রদেশে চীনা অনুপ্রবেশের দাবি করেছিলেন। তিনি নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে লিখেছিলেন যে, অরুণাচলের বিজেপি সাংসদ তাপীর গাও বলেছেন যে, চীন অরুণাচলে অনুপ্রবেশ করে কবজা করে নিয়েছে।

সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর এমন বিস্ফোরক দাবির পর বিজেপির সাংসদ তাপীর গাও মুখ খুলেছেন। তিনি বলেছেন, সুব্রহ্মণ্যম স্বামী ওনার বয়ানকে বিকৃত করে পেশ করা হয়েছে। তাপীর এও জানিয়েছেন যে, তিনি এমন কোনও কিছুই বলেন নি। বিজেপির সাংসদ তাপীর গাওয়ের এই মন্তব্যের পর এখন প্রশ্ন উঠছে যে, তাহলে কী সুব্রহ্মণ্যম স্বামী মিথ্যে কথা বললেন?

সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বৃহস্পতিবার ‘কু”তে পোস্ট করেছিলেন। তিনি লিখেছিলেন, ‘আজ আমি অরুণাচল প্রদেশের বিজেপি সাংসদ তাপীর গাও-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছি। তিনি আমাকে বলেছেন যে, অরুণাচল প্রদেশের মানুষ চায় আমি আমার মনোযোগ অরুণাচলের দিকেও ফোকাস করি। উনি বলেছেন, চীনা সেনাবাহিনী ম্যাকমোহন লাইন অতিক্রম করে রাজ্যের দক্ষিণে তিনটি সমান্তরাল পয়েন্টে অনুপ্রবেশ করেছে। আমি শীঘ্রই অরুণাচল প্রদেশে যাব।”

স্বামীর এই ট্যুইটের পর বিজেপি সাংসদ তাপীর গাও-এর জবাবও সামনে এসেছে। ট্যুইটারে স্বামীর ট্যুইট শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, ‘আমি ২ ডিসেম্বর ১০ঃ৩৫ এ সংসদের সেন্ট্রাল হলে সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর সাথে দেখা করেছি। তারপর তিনি আমাকে চীনা অনুপ্রবেশ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলেন। আমি বলেছিলাম যে, ১৯৬২ সালে চীন দুই থেকে তিনটি জায়গা দখল করেছিল। তখন কংগ্রেসের শাসন ছিল, কিন্তু নতুন করে অনুপ্রবেশ ঘটেনি। মোদী সরকারের সময় থেকে চীন কোনো জায়গা দখল করেনি। দুর্ভাগ্যবশত তারা আমার বক্তব্যকে উনি বিকৃত করে প্রকাশ করেছেন।”

উল্লেখ্য, কিছুদিন বিজেপির কমিটি থেকে নাম বাদ পড়েছিল সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর। বারবার দল বিরোধী মন্তব্যের জেরে ওনার বিরুদ্ধে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিজেপি। আর গত সপ্তাহে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার পর থেকে সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বিজেপির বিরুদ্ধে আরও বেশি করে সুর চড়াচ্ছেন। তবে, এবার মিথ্যে দাবি করে ফাঁসলেন তিনি।

Related Articles

Back to top button