Press "Enter" to skip to content

রাম মন্দিরের পর এবার সবরিমালা মন্দির মামলায় রায় শোনাবে আদালত! হিন্দুদের আস্থার সাথে জড়িত এই মামলা।

শেয়ার করুন -

রাম মন্দির মামলার ঐতিহাসিক রায়ের পরে এখন ভারতের প্রধান বিচারপতিকে (CJI) আরও চারটি বড় মামলার সিদ্ধান্ত নিতে হবে। যদিও অযোধ্যা জমি বিবাদ মামলাটি এখন অবধি সবচেয়ে বড় বলে  বিবেচিত হয়েছিল। তবে এ নিয়ে রায় শোনার পর এখন বাকি চারটি মামলা সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছে। আসলে, সিজেআই রঞ্জন গগৈয় এর নেতৃত্বে একটি বেঞ্চ তাদের শুনানি করে সিদ্ধান্তটি সংরক্ষণ করে নিয়েছে। এসব মামলার সিদ্ধান্ত আগামী সপ্তাহে আসবে।

এখন সবরিমালা মন্দির নিয়ে যে রায় আসবে, তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হবে। আসলে ভারতে অনেক মন্দির আছে যেখানে পুরুষের প্রবেশ নিষিদ্ধ, আবার অনেক মন্দির রয়েছে যেখানে মহিলা প্রবেশ নিষিদ্ধ। এখানে পুরুষ মহিলা বিদ্বেষ এর কোনো ব্যাপার নেই। যেমন সবরীমালা মন্দিরে দৈতি ব্রহ্মচারী, তাই সেখানে মহিলাদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। কারণ ব্রহ্মচারী দৈতি কম বয়সী মহিলাদের মুখ দেখেন না। তাই এটাই মন্দির নিয়ম। এটা হিন্দুরা সকলেই মেনে চলে। হিন্দুদের কোনো মহিলা সেখানে প্রবেশ করে না। কিন্তু এখন কেরলে বামপন্থী ও ক্রিস্টান মিশনারিদের উপদ্রব চরমে পৌঁছে গেছে।

তারা চাইছে মহিলাদের মন্দিরে ঢুকিয়ে মন্দিরের বিধি ভাঙতে। তাই ষড়যন্ত্র করে অভিযোগ তোলা হয়েছে যে মন্দিরে মহিলা প্রবেশ নিষিদ্ধ করে লিঙ্গ বৈষম করা হচ্ছে। আদালতও বামপন্থী ও ক্রিস্টানদের দাবি মেনে মহিলা প্রবেশের অনুমতি দিয়েছিল। কিন্তু হিন্দু সমাজ পূর্ন বিচারের দাবি তুলেছে। হিন্দু সমাজের পুরুষ, মহিলা উভয় একত্রে আদালতে পূর্নবিচার করতে পিটিশন দায়ের করেছে। এখন আদালত সেই ইস্যুতেই রায় শোনাবে।

এছাড়াও আরো তিনটি গুরুত্বপূর্ণ মামলায় আদালত রায় শোনাবে। যার মধ্যে একটা রাহুল গান্ধীর উপর মামলা রয়েছে। রাহুল গান্ধী প্রধানমন্ত্রী মোদীকে প্রমান ছাড়াই চোর বলে অভিহিত করেছিলেন। তার উপর আদালত রায় শোনাতে পারে। বিজেপি সাংসদ মীনাক্ষী লেখি আদালতে আবেদন করেছেন যে রাহুল গান্ধী যেন তার বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চান।