নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

নন্দীগ্রামে মমতাকে ৫০ হাজার ভোটে হারাতে না পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেব! হুঙ্কার শুভেন্দুর

কলকাতাঃ আজ নন্দীগ্রামের সভা থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একুশের নির্বাচনে তৃণমূলের প্রথম প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, একুশের নির্বাচনে তিনি নিজে নন্দীগ্রাম থেকে দাঁড়াবেন এবং জিতবেন। তিনি বলেন, নন্দীগ্রাম আমার জন্য খুব লাকি জায়গা। এখান থেকেই তৃণমূলের জয়ের সূচনা হবে, প্রতিটি আসনে জিতবে তৃণমূল। তিনি এও বলেন যে, ভবানীপুরকে নিরাশ করবেন না তিনি। ম্যানেজ করতে পারলে দুই কেন্দ্র থেকেই লড়ার ইঙ্গিত দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণার পাল্টা ঘোষণা করলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। কার্যত শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করার জন্য এবং ওনার দুর্গে ভাঙন ধরাতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রাম থেকে নির্বাচনে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে বড় ঘোষণা করলেন শুভেন্দু অধিকারী।

শুভেন্দু অধিকারী আজ কলকাতার সভা থেকে ঘোষণা করেন যে, যদি দল চায় তাহলে তিনিই নন্দীগ্রাম থেকে দাঁড়াবেন এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কমপক্ষে ৫০ হাজার ভোটে হারাবেন তিনি। শুভেন্দু অধিকারী এও বলেন যে, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ৫০ হাজার ভোটে না হারাতে পারলে তিনি রাজনীতি ছেড়ে দেবেন।

শুভেন্দু অধিকারীর এই ঘোষণার পর বঙ্গের নির্বাচন যে আরও ইন্টারেস্টিং হতে চলেছে সেটা বলাই বাহুল্য। আরেকদিকে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নন্দীগ্রাম থেকে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তকে বিজেপি সমেত সমস্ত রাজনৈতিক দল গুলোই কটাক্ষ করেছে।

কংগ্রেস নেতা আবদুল মান্নান আর বাম নেতা সুজন চক্রবর্তীর মতে ভবানীপুরকে আর নিরাপদ ভাবছেন না তৃণমূল নেত্রী। সেই কারণে তিনি এখন নন্দীগ্রাম থেকে নির্বাচনে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আরেকিকে, বিজেপির মতে হারের ভয়ে সংখ্যালঘু অধ্যুষিত আসন বেছে নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Related Articles

Back to top button